vlxxviet mms desi xnxx

অনার্স ২য় বর্ষের বই PDF

0

অনার্স ২য় বর্ষের বই PDF | Honours 2nd Year Book PDF Download

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, যখন আপনি অনার্স প্রথম বর্ষ সফলভাবে উত্তীর্ণ হবেন। তখন আপনাকে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে পড়তে হবে। আর যখন আপনি অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে পড়বেন। তখন অবশ্যই আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের বই pdf গুলো ডাউনলোড করে নিতে হবে। কারণ এখন আমরা সবাই জানি যে ইন্টারনেট এর মাধ্যমে আমাদের প্রয়োজনীয় বই গুলো পিডিএফ ফাইল আকার করে ডাউনলোড করা যায়। এবং যখন আপনি আপনার প্রয়োজনীয় Honours 2nd year book pdf download করে নিবেন। তখন আপনি আপনার নিজের ঘরে বসে কম্পিউটার অথবা মোবাইল দিয়ে আপনার বই গুলো পড়তে পারবেন।

সে জন্য আপনাকে আর লাইব্রেরী তে গিয়ে লাইন ধরে দাঁড়ানোর প্রয়োজন পড়বে না। তো আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের বই pdf আকারে ডাউনলোড করার উপায় গুলো দেখিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব। তাহলে চলুন আর দেরি না করে সরাসরি মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক। দেখুন আমরা যেহেতু অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে উত্তীর্ণ হয়েছি। সেহেতু আমাদের সবার জানা থাকবে যে, এই অনার্সের মধ্যে বিভিন্ন রকমের বিভাগ রয়েছে। আর এই ভিন্ন ভিন্ন বিভাগের জন্য ভিন্ন ভিন্ন বই রয়েছে। তো এক্ষেত্রে আমরা আসলে বুঝতে পারিনা যে, আমরা আমাদের অনার্স এর মধ্যে যে বিভাগে পড়ছি।

আরো দেখুনঃ

সে বিষয়ের অনার্স ২য় বর্ষের বই গুলো কোথা থেকে ডাউনলোড করে নিব। যদিও বা আপনি অনার্স ২য় বর্ষের বই লিখে সার্চ দিলে গুগলে অনেক ওয়েবসাইট খুঁজে পাবেন। কিন্তু সেই ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে পূর্ণাঙ্গ ভাবে সকল অনার্স ২য় বর্ষের বই গুলো দেওয়া হয় না। এতে করে আপনারা বেশ বিভ্রান্তির মধ্যে পড়ে যান। তো আপনি যাতে কোনো ধরনের বিভ্রান্তির মধ্যে না পড়েন। সেজন্য আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাকে ধারাবাহিক ভাবে Honours 2nd year book pdf download করার উপায় গুলো দেখিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব। যাতে করে আপনি খুব সহজেই আপনার অনার্স ২য় বর্ষের বই গুলো ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

অনার্স ২য় বর্ষের ব্যবস্থাপনা বিভাগের বইয়ের তালিকা

যেসব শিক্ষার্থী বন্ধুরা অনার্স দ্বিতীয় বর্ষে ব্যবস্থাপনা বিভাগ অধ্যয়ন করছেন। তারা চাইলে খুব সহজেই অনার্স ২য় বর্ষের বই ব্যবস্থাপনা বিভাগের pdf ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। তবে তার আগে আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের ব্যবস্থাপনা বিভাগের বইয়ের তালিকা জেনে নিতে হবে। আর আপনি যাতে অনার্স ২য় বর্ষের বই ব্যবস্থাপনা বিভাগের তালিকা সম্পর্কে জানতে পারেন। সে জন্য নিচে আমি টেবিল আকারে আপনার বই গুলোর নাম উল্লেখ করলাম।

ব্যবসায় যোগাযোগ সামষ্টিক অর্থনীতি বাংলাদেশ আইনগত পরিবেশ
অর্থায়নের নীতিমালা ব্যবসায় গণিত
কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা

অনার্স ২য় বর্ষের বই গণিত বিভাগের বইয়ের তালিকা

যেহেতু অনার্স এর মধ্যে বিভিন্ন রকমের বিভাগ রয়েছে। সেহুতু আমরা অনেকেই অনার্সে গণিত বিভাগ নিয়ে পড়াশোনা করি। তো যারা মূলত এই বিভাগে পড়াশোনা করে। তারা চাইলে অনলাইন থেকে তাদের প্রয়োজনীয় অনার্স ২য় বর্ষের বই গণিত বিভাগ পিডিএফ ফাইল গুলো ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। আর এবার আমি আপনাকে খুব সহজ ভাবে দেখিয়ে দিবো যে। কিভাবে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় অনার্স ২য় বর্ষের বই গণিত বিভাগ এর পিডিএফ ফাইল গুলো ডাউনলোড করতে পারবেন। তবে তার আগে আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের বই গণিত বিভাগের বইয়ের তালিকা দেখে নিতে হবে। চলুন এবার তাহলে সে সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নেওয়া যাক।

নন মেজর (যে কোনো দুইটি) মেজর
Physics-III Computer Programming
Environmental Chemistry Math Lab
Statistics Practical Ordinary Differential Equations
General Chemistry-II Calculus –II
Methods of Statistics

অনার্স ২য় বর্ষের সমাজকর্ম বিভাগের বইয়ের তালিকা

আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে Honours 2nd year book pdf download করার উপায় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত বলবো। তবে আমি শুরুতেই আপনাকে একটা কথা বলেছি। আর সেই কথা টি হলো যে আমি প্রত্যেক টা বিভাগ নিয়ে আলাদা আলাদা ভাবে আলোচনা করব। যাতে করে আপনি আপনার বিভাগের মধ্যে থাকা বিষয় গুলোর বই ডাউনলোড করতে পারেন। তো এবার সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য আমি অনার্স ২য় বর্ষের সমাজকর্ম বিভাগের বইয়ের তালিকা গুলো সম্পর্কে আপনাকে জানিয়ে দিবো। যাতে করে আপনি খুব সহজেই আপনার প্রয়োজনীয় অনার্স ২য় বর্ষের সমাজ কর্ম বিভাগের বইয়ের তালিকা সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন।

বাংলাদেশের অর্থনীতি সামাজিক নীতি ও পরিকল্পনা
নৃবিজ্ঞান পরিচিতি কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি
সামাজিক সমস্যা বিশ্লেষণ English Compulsory
মানবীয় জীববিজ্ঞান: বুদ্ধি ও বিকাশ সমাজবিজ্ঞান পরিচিতি

অনার্স ২য় বর্ষের অর্থনীতি বিভাগের বইয়ের তালিকা

আপনি যদি অনার্সের মধ্যে অর্থনৈতিক বিভাগে অধ্যায়ন করে থাকেন। তাহলে সবার শুরুতেই আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের অর্থনীতি বিভাগের বইয়ের তালিকা সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। কারণ অনার্স প্রথম বর্ষ শেষ করার পরে দ্বিতীয় বর্ষে আপনাকে কোন কোন বিষয় গুলো পড়তে হবে। তা আপনাকে পূর্ব থেকে জেনে নিতে হবে। এবং আপনার কোন কোন বিষয় গুলো মেজর এবং কোন বিষয় গুলো নন মেজর। তা সম্পর্কে অবশ্যই আপনাকে জেনে নিতে হবে। আর আপনি যাতে এই বিষয় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানতে পারেন। সে জন্য এবার আমি আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের অর্থনীতি বিভাগের বইয়ের তালিকা উল্লেখ করে দিব। আর আপনি এখান থেকে আপনার প্রয়োজনীয় বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে পারবেন।

মেজর অংশ নন মেজর অংশ
কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি  ইংরেজি (আবশ্যক)
গাণিতিক অর্থনীতি  বাংলাদেশের সমাজবিজ্ঞান 
ইন্টারমিডিয়েট ব্যষ্টিক অর্থনীতি  রাজনৈতিক সংগঠন এবং ব্রিটেন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক ব্যবস্থা 
ব্যবসায় পরিচিতি  বাংলাদেশের সমাজ ও সংস্কৃতি

অনার্স ২য় বর্ষের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বইয়ের তালিকা

অনার্স এর মধ্যে অন্যান্য বিভাগের যেমন গুরুত্ব রয়েছে। ঠিক তেমনি ভাবে হিসাব বিজ্ঞান বিভাগ কে অনেক গুরুত্বের সাথে ধরা হয়ে থাকে। আর আপনি যদি এই হিসাববিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে পড়াশোনা করেন। তাহলে অবশ্যই আপনাকে আপনার পড়াশোনার প্রতি যথেষ্ট গুরুত্ব আরোপ করতে হবে। আর আপনি যাতে অনার্স প্রথম বর্ষ শেষ করার পরে দ্বিতীয় বর্ষে হিসাব বিজ্ঞান নিয়ে ভালো মতো পড়াশোনা করতে পারেন। সে জন্য প্রথমেই আমি আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বইয়ের তালিকা দেখিয়ে দিব। যেখানে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় বইয়ের তালিকা গুলো দেখে নিতে পারবেন।

ব্যবসায় যোগাযোগ ও প্রতিবেদন লিখন  বাংলাদেশের করবিধি 
কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তি  সামষ্টিক অর্থনীতি 
ব্যবসায় পরিসংখ্যান  ইন্টারমিডিয়েট অ্যাকাউন্টিং 
ব্যবসায় গণিত 

অনার্স ২য় বর্ষের বাংলা বিভাগের বইয়ের তালিকা

বাংলা বিভাগ হলো অনার্সের অন্যতম একটি শাখা। যদি আপনি এই বাংলা বিভাগে অনার্স এ অধ্যায়নরত থাকেন। তাহলে জেনে রাখুন, আপনি অন্যতম একটি বিভাগ নিয়ে পড়াশোনা করছেন। আর যখন আপনি অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের বাংলা বিভাগ নিয়ে পড়বেন। তখন আপনার মোট আট টি বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করতে হবে। আর এবার আমি আপনাকে আপনার বিষয় গুলোর সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার চেষ্টা করব। সেজন্য আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের বাংলা বিভাগের বইয়ের তালিকা টি দেখে নিতে হবে।

রাজনৈতিক সংগঠন এবং যুক্তরাজ্য ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক ব্যবস্থা English Compulsory
বাংলাদেশের সমাজ ও সংস্কৃতি বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস – ১
মধ্যযুগের কবিতা বাংলাদেশের সমাজবিজ্ঞান
বাংলা কবিতা – ২ বাংলা নাটক – ১

অনার্স ২য় বর্ষ রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের বইয়ের তালিকা

যারা মূলত অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের রাষ্ট্রবিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করছেন। তাদের জন্য এবার আমি অনার্স ২য় বর্ষ রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের বইয়ের তালিকা তুলে ধরার চেষ্টা করব। যেখান থেকে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় বিষয় গুলো দেখে নিতে পারবেন। এবং পরবর্তী সময়ে আপনি এই অনার্স ২য় বর্ষের বই গুলো ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

বাংলাদেশের অর্থনীতি English Compulsory
বাংলাদেশের সমাজ ও সংস্কৃতি বাংলাদেশের রাজনৈতিক অর্থনীতি
রাজনীতি ও উন্নয়নে নারী রাষ্ট্রবিজ্ঞান: ব্রিটিশ ভারতে রাজনৈতিক ও সাংবিধানিক উন্নয়ন
প্রাচ্যের রাষ্ট্রচিন্তা বাংলাদেশের সমাজবিজ্ঞান

অনার্স ২য় বর্ষের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের বইয়ের তালিকা

আমাদের মধ্যে এমন অনেক শিক্ষার্থী থাকবেন। যারা মূলত অনার্স ইতিহাস বিভাগ নিয়ে অধ্যায়ন করছেন। আর সে কারণে তারা অধিকাংশ সময় ইতিহাস বিভাগের অনার্স ২য় বর্ষের বই ডাউনলোড করতে চায়। তো এমন অনেকেই আছেন, যারা মূলত অনার্স ২য় বর্ষের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের বইয়ের তালিকা দেখতে চায়। কারণ প্রথমত তাদের বইয়ের তালিকা দেখতে হবে। তারপরে তাদের কে সেই তালিকা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় বই গুলো ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে। আর সে কারণেই এবার আমি আপনার জন্য অনার্স ২য় বর্ষের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের বইয়ের তালিকা প্রদান করলাম। যেখান থেকে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় বিষয় গুলোর নাম দেখতে পারবেন।

রাজনৈতিক সংগঠন এবং যুক্তরাজ্য ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক ব্যবস্থা ভারতে মুসলমানদের ইতিহাস (১৫২৬ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত)
ভারতে মুসলমানদের ইতিহাস (১৮৫৮ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত) English Compulsory
প্রাচীন বাংলার ইতিহাস (১২০৪ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত) প্রাচীন বাংলার ইতিহাস (১২০৪ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত)
বাংলায় মুসলিম শাসনের ইতিহাস (১৭৫৭ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত) বাংলাদেশের সমাজবিজ্ঞান

Honours 2nd Year Book PDF Download

প্রিয় পাঠক, গুরুত্বপূর্ণ এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে অনার্স ২য় বর্ষের বই pdf ডাউনলোড করার উপায় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত বলার চেষ্টা করেছি। আশা করি, আপনি যদি আজকের আলোচিত এই আলোচনা টি মনোযোগ দিয়ে পড়ে থাকেন। তাহলে আপনি খুব সহজেই অনার্স ২য় বর্ষের বই pdf ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। তবে উপরে শুধুমাত্র বেশ কয়েক টি বিভাগ এর অনার্স ২য় বর্ষের বই ডাউনলোড করার উপায় গুলো শেয়ার করা হয়েছে। তবে আপনি যদি আপনার বিভাগ খুঁজে না পান। তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। আপনার কমেন্ট পাওয়া মাত্রই আমি আমার এই আর্টিকেলে আপনার বিভাগের অনার্স ২য় বর্ষের বই ডাউনলোড করার উপায় টি যুক্ত করে দিব।

আরো দেখুনঃ জিপিএ, সিজিপিএ গ্রেডিং পদ্ধতি.

অনার্স ২য় বর্ষের বই PDF F&Q

Q: উপসংস্কৃতি বলতে কি বুঝায়?

A: বর্তমান সময়ে আপনি বিভিন্ন ধরনের সংস্কৃতি লক্ষ্য করতে পারবেন। তবে সে গুলোর মধ্যে কিছু রয়েছে বৃহৎ অংশ জুড়ে। আবার কিছু কিছু সংস্কৃতি আপনি খুব ক্ষুদ্র পরিসর জুড়ে দেখতে পারবেন। তো এই বৃহৎ অংশ জুড়ে থাকা সংস্কৃতির তুলনায় ক্ষুদ্রতর সংস্কৃতি কে বলা হয়ে থাকে, উপসংস্কৃতি।

Q: বিপরীত সংস্কৃতি কাকে বলে?

A: যদি আপনি সংস্কৃতির মধ্যে ভালো ভাবে লক্ষ্য করেন। তাহলে আপনি মূলত দুই ধরনের সংস্কৃতি দেখতে পারবেন। তার মধ্যে একটি হলো বৃহৎ সংস্কৃতি এবং আরেক টি হল ক্ষুদ্র সংস্কৃতি বা উপসংস্কৃতি। তো যখন এই দুই ধরনের সংস্কৃতির মধ্যে সংঘাত বা দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়। তখন তাকে বলা হয়ে থাকে, বিপরীত সংস্কৃতি। আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে এ ধরনের সংস্কৃতি কে বলা হয়ে থাকে, পাল্টা সংস্কৃতি।

Q: অতি নগরায়ন কাকে বলে?

A: সাধারণ ভাবে আমরা মনে করি যখন একটি নগরের মধ্যে নগরায়নের বৃদ্ধি হয়। তখন তাকে বলা হয়ে থাকে অতি নগরায়ন। আদতে বিষয় টা এমন নয় বরং যখন একটি নগরীর মধ্যে যে ধারণ ক্ষমতা থাকে। তার অতিরিক্ত জনসংখ্যা হয় এর পাশাপাশি সেই জনসংখ্যার জীবন যাত্রার মান অনেক নিম্নমানের হয়। তখন তাকে বলা হয়ে থাকে, অতি নগরায়ন।

Q: বস্তি কাকে বলে?

A: সমাজে বিভিন্ন প্রকারের মানুষ বসবাস করে। হয়তো বা কোন মানুষ বিশাল বড় অট্টালিকার মধ্যে বসবাস করে। আবার আপনি এমন অনেক মানুষ কে দেখতে পারবেন। যারা শুধুমাত্র নিজের মাথা গোজার ঠাইয়ের জন্য ছোট্ট একটা খুপড়ির মধ্যে থাকে। তো যে মানুষ গুলো আসলে তাদের নিজের মাথা গোজার ঠাই এর জন্য এরকম ছোট্ট জায়গায় বসবাস করে। সেই জায়গার সমষ্টি কে বলা হয়ে থাকে, বস্তি।

Q: জেন্ডার অসমতা কি?

A: একটি সমাজে বিভিন্ন জেন্ডার এর মানুষ বসবাস করে। হয়তো বা কেউ নারী আবার কেউ পুরুষ। তো এই নারী পুরুষের যে অসম অবস্থান রয়েছে। মূলত সেই অসম অবস্থান কে বলা হয়ে থাকে, জেন্ডার অসমতা।

Q: বিশ্ব পরিবেশ দিবস কত তারিখে পালন করা হয়?

A: আপনি কি জানেন বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হয় কত তারিখে। যদি আপনি এই বিষয় টি সম্পর্কে না জেনে থাকেন। তাহলে শুনে রাখুন, প্রতি বছরের ৫ জুন পালিত হয় বিশ্ব পরিবেশ দিবস।

Q: বিচ্যুত আচরণ কাকে বলে?

A: সমাজে বসবাস করার সময় যখন নির্দিষ্ট কোন ব্যক্তি সমাজ স্বীকৃত পন্থায় কোন রকম আচরণ করে না। বরং তার উল্টো আচরণ প্রকাশ করে। সেই সাথে ওই ব্যক্তির মাধ্যমে সমাজে বসবাস করা অন্যান্য মানুষের জীবন ব্যাহত হয়। মূলত সেই ধরনের উল্টো আচরণ কে বলা হয়ে থাকে, বিচ্যুত আচরণ।

Q: সামাজিক নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রধান বাহন গুলোর নাম কি কি?

A: সামাজিক নিয়ন্ত্রণের জন্য আপনি বিভিন্ন ধরনের বাহন দেখতে পারবেন। আর সে গুলো হল শিক্ষা, রাষ্ট্র, ধর্ম, পরিবার এবং আইন। এই সব কিছুর সমন্বয়ে মূলত সামাজিক নিয়ন্ত্রণ সংগঠিত হয়ে থাকা।

Q: ক্ষতিপূরনের চুক্তি কাকে বলে?

A: সহজ কথায় বলতে গেলে, যে চুক্তির মাধ্যমে কোন একটি পক্ষের আচরণ বা কোন তৃতীয় পক্ষের আচরণের মাধ্যমে। যে ক্ষতি রক্ষা করার প্রতিশ্রুতি অপর আরেক টি পক্ষ কে প্রদান করা হয়ে থাকে। তাকে সহজে বলা হয়ে থাকে ক্ষতি পূরণের চুক্তি।

Q: জামিনদার বলতে কি বুঝায়?

A: জামিনদার বলতে বোঝানো হয়ে থাকে, যখন কোন ব্যক্তি চুক্তির খেলাফ করে। তখন সেই ব্যক্তির পক্ষে অন্য আরেক পক্ষের ব্যক্তি তার দায় পরিশোধ করার জন্য অঙ্গীকার করে। মূলত সেই চুক্তি কে বলা হয়ে থাকে, জামিনে চুক্তি। আর এই ধরনের অঙ্গীকার যুক্ত চুক্তি কে বলা হয়ে থাকে, জামিনদার।

Q: বীমার যোগ্য স্বার্থ কাকে বলে?

A: যখন কোন একজন ব্যক্তি তার নিজস্ব কোন বিষয় বা সম্পদের উপর বীমা করবে। মূলত তার সেই সম্পদের উপর বীমা করার প্রক্রিয়া কে বলা হয়ে থাকে, বীমা যোগ্য স্বার্থ।

Q: প্রস্তাব কে কিভাবে স্বীকৃতি প্রদান করা হয়?

A: প্রস্তাব কে মূলত তিনটি পদ্ধতির মাধ্যমে স্বীকৃতি প্রদান করা হয়ে থাকে। তার মধ্যে প্রথম টি হল, মৌখিক পদ্ধতি। এবং দ্বিতীয় পদ্ধতির নাম হল আচরণের পদ্ধতি। এবং সর্বশেষ পদ্ধতির নাম হলো লিখিত পদ্ধতি। মূলত এই তিন টি পদ্ধতির মাধ্যমে প্রস্তাব কে স্বীকৃতি প্রদান করা হয়।

Q: ভবিষ্যৎ প্রতিদান বলতে কী বোঝানো হয়?

A: যখন নির্দিষ্ট কোন চুক্তি কে ভবিষ্যৎ এর জন্য নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। তখন তাকে বলা হয়ে থাকে, ভবিষ্যৎ প্রতিদান।

Q: পাল্টা প্রস্তাব কাকে বলে?

A: যখন কোন একটি পক্ষ অপর আরেক টি পক্ষ কে কোন ধরনের প্রস্তাব প্রদান করে। এবং সেই বিপরীত পক্ষ যদি তার প্রদান করা প্রস্তাব গ্রহণ না করে। এর বিপরীতে উল্টো সে যদি পুনরায় আরো কিছু শর্ত আরোপ করে দেয়। তখন তাকে বলা হবে, পাল্টা প্রস্তাব।

Q: আর্থিক বিবরণী কাকে বলে?

A: সহজ কথায় বলতে গেলে কোন একটি নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠান এর মধ্যে সারা বছরের যে সকল ব্যবসায়ী কার্যকলাপ সম্পন্ন হয়। তার বিশেষ একটি সামগ্রিক ফলাফল প্রকাশের জন্য বছরের শেষে যে বিবরণী প্রকাশ করা হয়। তাকে বলা হয় থাকে, আর্থিক বিবরণী।

Q: চলতি সম্পত্তি কাকে বলে?

A: চলতি সম্পত্তি হলো এমন কিছু সম্পত্তির সমন্বয়। যা মূলত সম সাময়িক বছরে নগদে রূপান্তর যোগ্য। আর এই ধরনের রূপান্তর যোগ্য সম্পত্তি কে বলা হয়ে থাকে, চলতি সম্পত্তি।

Q: নিট নগদ প্রবাহ কাকে বলে?

A: মূলত বিশেষ কিছু সময়ের মধ্যে কোন একটি নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের যে নগদ প্রাপ্ত হয়। এবং সেই প্রাপ্ত হওয়া নগদ এর সাথে গাণিতিক পার্থক্যই হল নিট নগদ প্রবাহ।

Q: আপনার পরিচিত একজন বিখ্যাত গণিতবিদ এর নাম লিখুন।

A: আমার পরিচিত একজন বিখ্যাত গণিতবিদ হলেন, George Cantor.

Q: ভেনচিত্র কি?

A: বিখ্যাত একজন গণিত বিশারদ এর নাম হল, জনভেন। মূলত তিনি চিত্রের মাধ্যমে সেট এবং সেটের প্রক্রিয়ার কাজ গুলো সর্বপ্রথম উপস্থাপন করেন। আর সে কারণেই তার উপস্থাপিত চিত্র গুলো কে বলা হয়ে থাকে, ভেনচিত্র।

Q: ACB এগুলো কিসের প্রতীক?

A: ACB হল উপসেট এর প্রতীক। যখন আপনি সেট এর অংক করবেন। তখন আপনার এই ধরনের উপসেট এর প্রতিক গুলো ব্যবহার করতে হবে।

Q: সসীম সেট বলতে কি বুঝায়?

A: সহজ ভাষায় বলতে গেলে যে সেটের মধ্যে যে সকল উপাদান থাকে সেই উপাদানগুলোর সংখ্যা অনেক সীমিত তাকে বলা হয় তাকে সসীম সেট।

Q: একক সেট বলতে কি বুঝায়?

A: যেসব সেট গুলো মূলত একটি মাত্র উপাদান নিয়ে গঠিত হয়। সেই সব সেট কে বলা হয়ে থাকে, একক সেট। মূলত এই ধরনের সেট এর মধ্যে একটির বেশি আর উপাদান থাকে না।

Q: সমতুল্য সেট কাকে বলে?

A: যখন দুটি সমান সেটের মধ্যে মোট উপাদানের সংখ্যা একই হয়। কিন্তু তাদের এই উপাদান গুলোর সাথে অন্য কোন উপাদানের কোন প্রকারের মিল থাকে না। সেই সাথে উক্ত সেটের মধ্যে থাকা উপাদান গুলো পরস্পরের মধ্যে জোড় সম্পর্ক স্থাপন করে। সেই ধরনের সেট কে বলা হয়ে থাকে, সমতুল্য সেট।

Q: শর্ত যুক্ত সমীকরণ কি?

A: যখন আপনার সামনে নির্দিষ্ট কোন সমীকরণ থাকবে। এবং সেই সমীকরণের অজ্ঞাত ও রাশির মান গুলো ভিন্ন ভিন্ন হয়। তাকে মূলত শর্ত যুক্ত সমীকরণ বলা হয়ে থাকে।

Q: অবচয় কি?

A: সহজ কথায় বলতে গেলে সময়ের বিবর্তন হয়। আর এই সময়ের বিবর্তন হওয়ার সাথে সাথে যখন ব্যবহার জনিত কারণে স্থায়ী এর মধ্যে সমাপ্তি লক্ষ্য করা যায়। তার ফলে মূল্য হ্রাস পায় মূলত একই বলা হয়ে থাকে অবচয়।

Q: চক্রবৃদ্ধি সুদ কাকে বলে?

A: যখন নির্দিষ্ট একটি সময় থাকবে এবং সেই সময় যখন পেরিয়ে যাবে। তখন তার মূলধনের পরিমাণ এর ক্ষেত্রে চক্র বৃদ্ধি ঘটে থাকে। মূলত একে বলা হয়ে থাকে, চক্রবৃদ্ধি সুদ।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

sex videos
pornvideos
xxx sex