vlxxviet mms desi xnxx

শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম

0

শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম | শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত

2022 সালের শবে মেরাজ চলে এসেছে। আর মাত্র কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে। যদিও শবে মেরাজ নির্ভর করে সম্পূর্ণ চাঁদ দেখার উপর। শবে মেরাজ নামাজের জন্য আমরা পূর্ব প্রস্তুতি নিয়ে থাকে। আর তার জন্য সবার আগে আমাদের শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম সম্পর্কে জানতে হবে।

গুরুত্বপূর্ণ: আজকের নামাজের সময় সূচী।

আপনারা যাতে খুব সহজে শবে মেরাজ রাতের নামাজ এর নিয়ম জানতে পারে এবং শবে মেরাজের ইবাদত সম্পর্কে অবগত থাকেন তার জন্য আমরা আপনাদের কাছে এ আর্টিকেলটি নিয়ে হাজির হয়েছি। কারণ প্রত্যেক মুসলমানদের জন্য শবে মেরাজের নামাজ গুরুত্বপূর্ণ। চলুন তাহলে শুরু করি আর আমরা আজকের শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি।

মেরাজ শব্দের অর্থ কি?

শবে মেরাজ সম্পর্কে জানার আগে সবার আগে জানা উচিত মেরাজ শব্দের অর্থ কি। কারণ আমরা যদি মেরাজ শব্দের অর্থই না জানি তাহলে এর নিয়ম বা ফজিলত জানার কোনো অর্থই রইল না। তাই আমাদের সবার আগে জানতে হবে মিরাজ শব্দের অর্থ।

“মেরাজ” শব্দটি এসেছে আরবি শব্দ “আরাজা” থেকে। “আরাজা” শব্দের অর্থ আহরণ। আর এই দুটি শব্দের মধ্যে পার্থক্য হল রাখিয়া ধারা দৈহিক আহরণ। অন্যদিকে আরাজা শব্দ ধারা বোঝায় আত্মিক আহোরণ। সুতরাং “মেরাজ” শব্দের অর্থ হলো “আত্মিক আহোরণ”। “লাইলাতুল” শব্দটির অর্থ হচ্ছে “রাত” এবং “মেরাজ” শব্দের অর্থ “আহরণ”।

আরো দেখুনঃ শবে মেরাজের আমল ও ফজিলত.

শবে মেরাজ কবে?

ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের কাছে এবাদত এর দিনগুলি আসার আগে তাদের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন জেগে ওঠে। তার মধ্যে অন্যতম প্রশ্ন হচ্ছে এই বিশেষ দিনটি কবে অনুষ্ঠিত হবে। ঠিক তেমনি এবারও সকলের মনে একটি প্রশ্ন শবে মেরাজ কবে?

যদিওবা শবে মেরাজ নির্দিষ্ট করে বলা যাবে না, কারণ এসকল ধার্মিক দিনগুলো চাঁদ দেখার উপর নির্ভর করে বলতে হয়। তবে আনুমানিকভাবে জানা যাচ্ছে যে 2022 সালের ফেব্রুয়ারি মাসের 28 তারিখ রাতে শবে মেরাজের নামাজ হবে।

আমাদের মুসলমান বিশ্বাসিদের বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) 26 রাতে ঊর্ধ্ব আকাশে ভ্রমণ করেন এবং আল্লাহর কাছে সাক্ষাৎ করেন। আর তার জন্য এই রাত শবে মেরাজ হিসেবে খ্যাতি পেয়েছে।

সুতরাং ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা ২৮শে ফেব্রুয়ারি রাতে নামাজ এবং এবাদাত করবেন এবং ১লা মার্চ পবিত্র শবে মেরাজ পালিত হবে। আর এই শবে মেরাজ দিনটি বাংলাদেশ সংবিধান অনুসারে সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠান সরকারি ভাবে ঐচ্ছিক ছুটি হিসেবে পালন হবে।


শবে মেরাজের রোজা কয়টি

শবে মেরাজের রোজা কয়টি? শবে মেরাজের রোজা কয়টি রাখতে হয়? এ প্রশ্নগুলো আমাদের মনে সচরাচর চলে আসছে। কিন্তু হাদিসে স্পষ্ট করে বা নির্দিষ্ট ভাবে বলা হয়নি যে শবে মেরাজের নির্দিষ্ট রাকাত নামাজ পড়তে হবে বা নির্দিষ্ট রোজা রাখতে হবে।

তবে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ  ঘটনা গুলির মধ্যে শবে মেরাজের ঘটনাটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। কারণ এই রাতে হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) দিবাগত রাতের আকাশে ঊর্ধ্ব গমন করেন এবং আল মহান আল্লাহর আরশে গিয়ে পৌঁছান। আল্লাহর সাথে সাক্ষাত করার জন্য।

আল্লাহর সাথে সাক্ষাত করার জন্য এবং উম্মতের জন্য মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ উপহারস্বরূপ নিয়ে আসেন। আর তাই আমরা অনেকেই এই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ কে নবীজির মেরাজ নামে চিনে থাকি।

মূলত এই রাতের ভ্রমণ ছিল একটি বার্তা শুরু। হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) আকাশে উদ্যোগ গ্রহণের কারণ একটাই ছিল যাতে তার উম্মতদের তিনি জান্নাত জাহান্নাম এবং পরকাল সম্পর্কে জানাতে পারেন। তাছাড়া এর বেশি কোন কিছু ছিল না।

যেহেতু এড়াতে মহান আল্লাহ তাআলা হযরত মুহাম্মদ সাঃ কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করেন এবং উম্মতের জন্য নির্দিষ্ট বার্তা নিয়ে আসেন সেহেতু এই রাতটি মুসলমান উম্মাহদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ রাত। তবে এই রাতের জন্য বিশেষ রাকাত নামাজ পড়া বা  নির্দিষ্ট করে রোজা রাখা কোনো হাদিস পাওয়া যায়নি। এমনকি রাসুল (সাঃ) এর যুগে সাহাবীগণ এই রাতের জন্য নির্দিষ্ট কোন রাকাত নামায পড়েনি বা নির্দিষ্ট কোন রোজা রাখেন নি।

তবে রাসুল (সাঃ) প্রত্যেক মাসে তিনটি রোজা রাখতেন। আপনারা চাইলে শবে মেরাজ মাসে তিনটি রোজা রাখতে পারেন। তবে কেউ যদি শবে মেরাজকে উদ্দেশ্য করে রোজা নামাজ পড়ে তাহলে এই বিদআত হিসেবে গণ্য করা হবে।

সুতরাং, স্পষ্ট ভাবে লক্ষণীয় যে শবে মেরাজের জন্য কোন নির্দিষ্ট রাকাত নামাজ নেই বা নির্দিষ্ট রোজা নেই। যদি কেউ শবে মেরাজ কে উদ্দেশ্য করে নির্দিষ্ট রাকাত নামাজ পড়ে রোজা রাখে তাহলে সেই বিদআত হিসেবে গণ্য হবে।

শবে মেরাজের নামাজের নিয়ত

আমরা আপনাদেরকে আগেই জানিয়ে দিয়েছি দিয়ে শবে মেরাজের কোন নির্দিষ্ট নামাজ নেই। তাই শবে মেরাজের নির্দিষ্ট নামাজের নিয়ত নেই। তবে কেউ যদি নফল নামাজ পড়তে চায় কিন্তু শবে-মেরাজ কে উদ্দেশ্য করে নয় তাহলে সেই নামাজ পড়তে পারবে। এবং সেই এবাদতের জন্যে নফল ইবাদাত পরিমাণ সওয়াব লাভ করতে পারবে।

 নফল নামাজের নিয়ম হচ্ছে-

  •  প্রথমে অজু করে কেবলামুখী হয়ে দাঁড়াতে হবে।
  •  এরপর আরবিতে বা নিজ বাসায় মহান আল্লাহর উদ্দেশ্যে নিয়ত করতে হবে।
  •  আমরা পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ যেভাবে পড়ি ঠিক সে ভাবে নামাজ আদায় করতে হবে।
  •  তবে নফল ইবাদতের নামাজগুলো দু’রাকাত করে হয় এবং দু রাকাত পরে মোনাজাত ধরা যায়।

আমরা এখানে সাধারণ নফল নামাজের নিয়ম তুলে ধরেছি। যেহেতু শবে মেরাজের নামাজের কোন বাধ্যকতা নেই বা এর নির্দিষ্ট করে কোন হাদীসে পাওয়া যায় নি সুতরাং শবে মেরাজের নামাজ যদি কেউ পড়ে তাহলে সে টি বিদআত হিসেবে আমলনামা জমা হবে।



শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম

যেহেতু শবে মেরাজের নামাজের কোন নির্দিষ্ট রাকাতের কথা বলা হয়নি বা নামাজ আদায় করতে হবে এমন কোন হাদিস পাওয়া যায়নি সেতু শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম নেই। তবে এই বিশেষ রাতে আপনারা চাইলে নফল হিসেবে নামাজ পড়তে পারেন। তবে এই নফল নামাজ কোন ভাবে শবে মেরাজকে উদ্দেশ্য করে পড়া যাবে না। যদি পড়া হয় তাহলে এটি বিদআত হবে।

আর যদি আপনারা এই রাতে সাধারণ নফল নামায পড়েন তাহলে যেভাবে সাধারণত দুই রাকাত নফল নামাজ নিয়ত করা হয় সেই নিয়মে আপনারা সাধারণভাবে নফল নামাজ পড়তে পারবেন।

আরো দেখুনঃ রমজান মাসের ক্যালেন্ডার ২০২২.

F&Q

১. শবে মেরাজের নামাজ কত রাকাত?

উত্তরঃ শবে মেরাজের কোন নির্দিষ্ট নামাজ নেই। শবে মেরাজ এর জন্য নির্দিষ্ট কোন নামাজের রাকাত নেই।

২. শবে মেরাজের রোজা কয়টি রাখতে হয়?

উত্তরঃ শবে মেরাজ এর জন্য নির্দিষ্ট করে রোজা রাখা হয় না। তাই শবে মেরাজ এর জন্য নির্দিষ্ট সংখ্যক রোজা রাখার নিয়ম বা রোজা নেই। যা হাদিস থেকে প্রমাণিত।

৩. শবে মেরাজের ইবাদত কি হিসেবে গণ্য করা হবে?

উত্তরঃ শবে মেরাজের নির্দিষ্ট কোনো এবাদাত নেই। তবে যদি কেউ শবে মেরাজ কে নির্দিষ্ট করে নামাজ রোজা রেখে এবাদত পালন করে তাহলে সেটি বিদআত হিসেবে গণ্য হবে।

৪. শবে মেরাজ মুসলমানদের কাছে কেন গুরুত্বপূর্ণ?

উত্তরঃ শবে মেরাজ মুসলমানদের কাছে অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দিন গুলোর মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দিন।  দিনে মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সাথে সাক্ষাত করার উদ্দেশ্যে সাত আসমানে আরশে গিয়ে পৌঁছান।

উপসংহার: সকল ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের কাছে আশা করছি যে আপনারা আমাদের শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম এই আর্টিকেলের মাধ্যমে শবে মেরাজ সম্পর্কে অবগত হতে পেরেছেন। তাছাড়া আপনাদের যাদের মধ্যে জানার ইচ্ছে ছিল শবে মেরাজের নামাজের নিয়ম তারা বুঝতে পেরেছেন যে আসলে শবে মেরাজের কোন নির্দিষ্ট নামাজের নিয়ম নেই। এছাড়া শবে মেরাজ সম্পর্কিত আরও তথ্য জানতে চান তাহলে আমাদের নিজের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। জাযাকাল্লাহ খাইরান। 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

sex videos
pornvideos
xxx sex