vlxxviet mms desi xnxx

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps

9

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps

বর্তমানে যোগাযোগ করার অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক। ফেসবুকের মাধ্যমে বর্তমানে এখন প্রায় সকল কাজ সম্পন্ন হয়। আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব সকলের সাথে ভার্চুয়াল ভাবে কথা বলা এবং তাদের খবর আদান প্রদান করা সহ ব্যবসায় পর্যন্ত করা যায়। আমরা যারা ফেসবুক ব্যবহার করি তারা নিজেদের ব্যক্তিগত কিছু তথ্য শেয়ার করে থাকি। আর ব্যক্তি কিছু তথ্য কিছু মানুষের জন্য ভয়ঙ্কর হয়ে পড়ে।

কারণ পৃথিবীতে সকল মানুষের কেউ না কেউ শত্রু রয়েছে। আর তারা তাদের আক্রোশ থেকে ফেসবুক আইডি হ্যাক করে ব্ল্যাকমেইল করে। ফেসবুক আইডি হ্যাক করার জন্য বিভিন্ন ধরনের আপস ব্যবহার করা হয়। আজ আমরা আপনাদের সাথে ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps সম্পর্কে জানাবো। যাতে করে আপনারা খুব সহজেই জানতে পারে ফেসবুক আইডি কিভাবে হ্যাক করা যায় এবং কোন সফটওয়ারের মাধ্যমে হ্যাক করা হয়? এর সাথে সাথে এটিও জানব যে ফেসবুক আইডি হ্যাক করার পরবর্তীতে আমাদের সাধারন মানুষের কি ধরনের শাস্তি রয়েছে।

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps 2021

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার অ্যাপস ব্যবহার করে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক করতে পারবেন। তবে এটি এতসহজ কাজ নয়। এটি কিছুটা কঠিন আবার কিছুটা আইনি বাধা রয়েছে। আপনি যদি কোন যুক্তিসঙ্গত কারণে কারও ফেসবুক আইডি হ্যাক করতে চান তাহলে আপনাকে এর আগে কোনো বাধা সম্মুখীন হতে হবে না। কিন্তু যদি কোনো যুক্তিসংগত কারন  ছাড়া বা ব্ল্যাকমেইল করার জন্য ফেসবুক আইডি হ্যাক করতে চান তাহলে আপনাকে আগে বিভিন্ন ধরনের বাধায় পরতে হবে।

গুরুত্বপূর্ণ: নাম্বার দিয়ে ফেসবুক আইডি বের করা

ফেসবুক হ্যাক করার বিভিন্ন ধরনের আপস রয়েছে।  আপনারা এ ধরনের অ্যাপস খুব সহজেই গুগোল প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারেন বা ওয়েবসাইটে একাউন্ট করে নিতে পারেন।  তবে সবগুলো একই রকম নয়, একেক রকম হয়ে থাকে। আজ আমরা আপনাদের মাঝে কিছু ফেসবুক আইডি হ্যাক করার অ্যাপস নিয়ে আলোচনা করব।

৫ টি ফেসবুক হ্যাকিং সফটওয়্যার android

৫ টি ফেসবুক আইডি হ্যাকিং সফটওয়্যার সম্পর্কে আপনাদের জানাবো। এই সফটওয়্যার গুলো আপনারা এন্ড্রয়েড মোবাইলে গুগল প্লে স্টোর থেকে আপনারা খুব সহজে ডাউনলোড করতে পারবেন। তখন আপনারা এই অ্যাপস ব্যবহার করে ফেসবুক আইডি হ্যাক করতে পারবেন। তবে কিছু কিছু সাইট বা অ্যাপস  আছে যেগুলো অর্থ দিয়ে ক্রয় করে লিগেল ভাবে ব্যবহার করতে পারবে। নিম্নে ৫ টি ফেসবুক হ্যাকিং সফটওয়্যার android দেয়া হলঃ

Hover watch

আপনি যখন Hover watch  সাইটের জায়গা কিনবেন তখন আপনি যে কোন এন্ড্রয়েড ডিভাইসের পুরোপুরি নিজের আয়ত্তে আনতে পারবেন আর যখন আপনি ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps ড্যাশবোর্ডে যাবেন তখন আপনি এই অ্যাপসটি থেকে কিছু সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps

Passwordrevelator

Passwordrevelator সফটওয়ারটি অন্যান্য সফটওয়্যার এর মত। এটি একদম একটি ভিন্নধর্মী সফটওয়্যার। এটি দ্বারা যখন আপনি কাজ করবেন তখন আপনি আপনার মানিব্যাগ গ্যারান্টি পাবেন। এটি একটি অনেক বড় সুবিধা। আর এই অ্যাপসটিতে প্রতিনিয়ত নতুন ফেসবুক একাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করা যায়। যারা নিয়মিত ফেসবুকের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে তারা এ পাসওয়ার্ডগুলো স্টোরে জমা রাখতে পারে এবং প্রতিনিয়ত ফেসবুকের পাসওয়ার্ড আপডেট করতে পারবে।

এছাড়াও আপনি চাইলে আপনার ,হোয়াটসঅ্যা্‌ ভাইবারে, ইনস্টাগ্রাম ইত্যাদি সহ অনেক ধরনের সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাকাউন্ট খুলে পাসওয়ার্ড হ্যাক করতে পারেন। আর এই অ্যাপসটি পুরোপুরি নিতে আপনাকে অবশ্যই এটি একেবারের জন্য কিনে নিতে হবে। আপনি চাইলে বিভিন্ন ধরনের স্ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। 

Spyzie

ফেসবুক হ্যাক করার জন্য এটি  একটি জনপ্রিয় অ্যাপস। এটি যখন আপনি ওয়েব সাইটে একাউন্ট খুলবেন তখনই আপনি দেখতে পারবেন এর ফিচারটি ক্রয় করতে কত টাকা ব্যয় করতে হবে আর তখন আপনি আপনার সুবিধার মত ফিচার ক্রয় করে সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

ফেসবুক হ্যাকিং সফটওয়্যার android

আপনি এখানে যত টাকা ব্যয় করবেন ঠিক ততটাই আপনি ফিচার ব্যবহার করতে পারবে। এছাড়াও আপনি যে কারো এন্ড্রয়েড ফোন কন্ট্রোল করতে পারবেন। শুধু তাই নয় সফটওয়ারের মাধ্যমে আপনি ফেসবুক একাউন্ট সহজে হ্যাক করে নিতে পারবেন।

Xpspy

এটি ফেসবুক আইডি হ্যাক করার এমন একটি হ্যাকিং অ্যাপ যেখানে আপনার টার্গেটকৃত সমস্ত ব্যবহারকারীর ফোনের ডকুমেন্ট আপনার হাতের মুঠোয় চলে আসব। এই অ্যাপসটি হ্যাক করার জন্য অ্যাপসটি যে কারো ফেসবুক আইডি হ্যাক করার জন্য একটি আদর্শ এবং বিশ্বাসযোগ্য অ্যাপস। যেখানে আপনি হ্যাঁক করলেও অন্য ব্যক্তি আপনাকে বুঝতে পারবে না।

Ispyoo

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের যতগুলো অ্যাপস ব্যবহার করা হয় ঠিক ততগুলো অ্যাপস আপনি যদি একসাথে এড করতে চান তাহলে আপনার জন্য এই অ্যাপসটির একদম পারফেক্ট। কারণ এই অ্যাপসে ফেসবুক সহ যেকোন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যম  আপনি হ্যাক করতে পারবেন। আর এর জন্য আপনাকে তেমন কিছু করতে হবে না।

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার নিয়ম

তাদের সাইটে গিয়ে শুধুমাত্র একটি অ্যাকাউন্ট করতে হবে এবং তাদের একটি প্লেন কে বেছে নিতে হবে। তাহলে আপনি এই অ্যাপস এর কাজ শুরু করতে পারবেন। নতুবা আপনি এই অ্যাপসের মাধ্যমে হ্যাকিং কার্যক্রম করতে পারবেন না।

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার নিয়ম

ফেসবুক আইডি বিভিন্ন উপায়ে হ্যাক করা যায়। তবে বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি উপায় হচ্ছে লিংক দিয়ে ফেসবুক আইডি হ্যাক করা।  আজ আমরা আপনাদের লিংক দিয়ে ফেসবুক আইডি হ্যাক করে কিভাবে সেটি সম্পর্কে কিছু তথ্য দিব।

লিংক দিয়ে ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক:

আপনারা অনেকেই জানেন যে লিঙ্ক দিয়ে ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক করা যায়। তাই এই লিংকগুলো সম্পর্কে আমরা অনেকটা সচেতন হয়ে গেছি। তাই সাধারণ কোন লিঙ্ক ফেসবুকে সেন্ড করলে সেটাকে ফিশিং হিসেবে চালিয়ে দেই। 

আমরা কোন লিংক পেলে সেখানে ক্লিক করে ফেলি । আর এ ক্লিক করার মাধ্যমেই হ্যাকাররা ফেসবুক আইডি হ্যাক করে। এই লিংকগুলো কে আমরা ফিশিং লিঙ্ক হিসেবে চিনে থাকি। এই লিংকগুলো চুম্বকের মত আকর্ষণ করে। আপনার ফেসবুক আইডির পাসওয়ার্ড এবং জিমেইল এড্রেস কে।

আমরা যে কারও পাঠানো লিংকে ঢোকার আগে অবশ্যই দেখে নিবো যে http অথবা https এই দুইটা লিংক এর মধ্যে অ্যাড আছে কিনা। যদি না থাকে তাহলে আমরা এধরণের লিংকে যাব না। কারণ লিংকের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে যেতে পারে।

ফিশিং লিঙ্ক গুলোই এমনভাবে সাজানো থাকে যে এটা আপনি কিছুই বুঝতে পারবেন না যে আসলে এটি ফিশিং ছিল।  যেমনঃ ভালোবাসা দিবসের শুভেচ্ছা অথবা কোন রাষ্ট্রের স্বাধীনতা অথবা বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা উক্তি দিয়ে এ ধরনের দিনকে ব্যবহার করা হয়। 

লিংক ব্যবহার করে যে সমস্ত ফেসবুক হ্যাক করা হয় তার মধ্যে কিছু জনপ্রিয় এক ধরন রয়েছে।আর সেগুলো হচ্ছে- 

ব্রুট ফোর্স অ্যাটাক:

এটি ফেসবুক হ্যাক করার জন্য সর্বাধিক ব্যবহৃত হয় এবং এটি খুব কার্যকরী একটি হ্যাকিং পদ্ধতি। এ পদ্ধতির মাধ্যমে হ্যাকারদের মিলিয়ন মিলিয়ন পাসওয়ার্ড এর প্রয়োজন ।এই পাসওয়ার্ডগুলো মধ্য থেকে কয়েকটি পাসওয়ার্ড ফেসবুক একাউন্টে ব্যবহৃত হয়ে থাকে এবং সে পাসওয়ার্ডগুলো ট্র্যাক করে খুব সহজে ফেসবুক আইডি হ্যাক করে থাকে। সেক্ষেত্রে তারা যখন ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয় তখন তারা পাসওয়ার্ডগুলো মধ্যে থেকে যদি একটি পাসওয়ার্ড আপনার সাথে মিলে যায় তাহলে আপনার আইডি হ্যাক হয়ে ।আর এভাবেই তারা ফেসবুক আইডি গুলো হ্যাক করে থাকে।

এখানে হ্যাকাররা খুব চালাক হয়। চালাকি করে তারা ফেসবুক আইডি হ্যাক করে বেশিক্ষণ সময় নেয় না। তারা যে পিসিতে ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক করে সেই পিসি,চালু রেখে অন্যান্য কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। তাই বুঝা যায় না যে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে যে।

গেমস এবং অ্যাপস ব্যবহারের ফেসবুক আইডি হ্যাক:

নেট দুনিয়ায় এমন অনেক ওয়েব বা অ্যাপস  এবং এমন অনেক গেমস রয়েছে। যেগুলোতে আপনি প্রবেশ করলে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে যেতে। আর এটি খুব ক্ষতিকর একটি মাধ্যম। আর আপনি যখন এই অ্যাপসগুলো অথবা গেমসে ঢোকার পরে তারা আপনার কাছে আপনার বিভিন্ন বিষয়ে এক্সেস  নিতে চায়। আপনি যদি এই এক্সেস গুলো দিয়ে থাকেন তাহলে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে । আর যদি দিয়ে না দেন তাহলে তারা আপনারা ফেসবুক আইডিটি হ্যাক খুব সহজেই হ্যাক করতে পারবে না।

আপনি যদি তাদের কাছে আপনার ফাইল স্তরেজ ইত্যাদি সম্পর্কে এক্সেস দেন তাহলে তারা আপনার ফোনকে কন্ট্রোল করবে এবং আপনার গুরুত্বপূর্ণ সব কিছু চুরি করে নিয়ে । পরে আপনাকে ব্ল্যাকমেইল করবে। তবে এধরনের কাজ থেকে আপনাকে বিরত থাকা উচিত। এভাবে অ্যাপস এবং গেমস এর মাধ্যমে ফেসবুক আইডি সহ মোবাইল কন্ট্রোল করতে পারে।

লি-লগার ফাইল এর মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক:

ধরুন আপনি একটি ওয়েবসাইট থেকে কোন ফাইল ডাউনলোড করছেন আর এই ফাইলগুলিতে  রয়েছে অনেক ধরনের ভাইরাস। যদি আপনি আপনার কম্পিউটার অথবা আপনার ফোনের ডিভাইসে এই ফাইলটি ডাউনলোড করেন তাহলে আপনার ফেসবুক আইডি এবং আপনার মোবাইল কন্ট্রোলার সম্পূর্ণ হ্যাকারের হাতে চলে । এভাবেই ফাইল ব্যবহার করে তারা ফেসবুক আইডি হ্যাক করে থাকে তবে আপনাকে এ ধরনের পদ্ধতি জেনে আপনাকে সর্তকতা অবলম্বন করা উচিত। 

ফ্রি এবং পেইড টুলস ব্যবহার করে ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক:

অনেক প্রফেশনাল হ্যাকাররা আছে তারা বিভিন্ন ধরনের ফ্রি এবং পেইড টুলস ব্যবহার করে ফেসবুক আইডি হ্যাক করে থাকে। যেমন আমরা উপরে বর্ণিত পাঁচটি ফেসবুক অ্যাপস সম্পর্কে জেনেছি সেই অ্যাপস গুলো ব্যবহার করে তারা ফেসবুক আইডি হ্যাক করে থাকে। এগুলো কিছু লোক করে থাকে তাই তারা বিভিন্ন উপায়ে ব্যবহার করে ফেসবুক আইডি হ্যাক করার জন্য এ ধরনের টুল ব্যবহার করে থাকে।

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার ফিশিং সাইট

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার ফিশিং সাইট হচ্ছে যে সাইটের মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক করা হয় সেই সাইড গুলোকে বুঝাচ্ছে। যেমনঃ আমরা উপরে আলোচনা করেছি লিংকের মাধ্যমে ফেসবুক আইডি হ্যাক করা যায় আর এই লিংকগুলো কে ফিশিং লিঙ্ক বলে। আমরা যখন এ ফিশিং লিংকে ক্লিক করি তখন একটা ওয়েবসাইটে প্রবেশ করা হয় আর এই ওয়েবসাইটগুলোকে ফিশিং সাইট বলা হয়। বিশেষ বার্তা ব্যবহার করে অথবা বিশেষ দিন ব্যবহার করে এ ধরনের ফিশিং সাইট তৈরি করা হয়।

ফেসবুক আইডি হ্যাক করার শাস্তি

বর্তমানে বাংলাদেশে সহ বিভিন্ন দেশে ফেসবুক ব্যবহারের সংখ্যা অনেক গুন বেড়ে গেছে। আর এর  সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়ে গেছে ফেসবুকের সাথে জড়িত বিভিন্ন প্রকার অপরাধসমূহ। এ সকল অপরাধসমূহের মধ্যে সব থেকে মারাত্মক অপরাধ হলো অন্যের ফেসবুক আইডি হ্যাক (ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps) করা।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০২৮ নামে বাংলাদেশে একটি আইন পাস করা হয়েছে। আর এই আইনের ৩৪ ধারা অন্যের আইডি হ্যাক করার শাস্তি বর্ণিত যে ব্যক্তি হ্যাকিং করেন তাহলে সেই ব্যক্তির ১৪ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হবেন অথবা এক কোটি টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন।

উপসংহার: আশা করি আপনারা এখন ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps সম্পর্কে জানতে পেরেছেন এবং এর পাশাপাশি আরও অনেক তথ্য পেয়েছেন। এখন আপনারা জারা হ্যাকিং পেশায় যেতে চান তারা খুব সহজেই কাজ শিখে বৈধ উপায়ে হ্যাকিং এর কাজ করতে পারবেন। আপনারা এটা অবশ্যই মনে রাখবেন ”ফেসবুক আইডি হ্যাক করার apps” কোন অপরাধে যাওয়া যাবে না। না হলে অনেক বড় শাস্তির আপনার জন্য অপেক্ষা করবে।

এভাবে আপনারা ফেসবুক হ্যাক সম্পর্কে জানতে পারবেন এবং নিজেরাও সতর্ক হতে পারেন। কারন নিজেরা সতর্ক না হলে নিজেরাই বিপদে পরতে হবে। তাই নিজেরা সতর্ক হওয়ার সাথে সাথে পরিচিত জনদের মাঝে সতর্ক বার্তা পৌঁছে দিন।

9 Comments
  1. শফিকুল says

    আমার লাগবে এই এপ্লিকেশন

    1. Asikur Rahman Naim says

      ভালো করে লেখাটি পড়ুন এবং অ্যাপসটি ডাউনলোড করুন.

  2. hridoy says

    আমার হ্যাকিং app লাগবে

  3. Siam says

    id hack

  4. Sabbir Rhoman says

    Facebook I’d hack

  5. Rana says

    amar ai apps ta lakbe please help me

  6. অদৃশ্য মানব says

    ভাই আমার লাগবো🤟

    1. Asikur Rahman Naim says

      আপনি কষ্ট করে লেখাটি পড়ুন, সেখানে ডাউনলোড সিস্টেম দেওয়া আছে.

  7. অদৃশ্য মানব says

    ভাই কবে দিবেন

Leave A Reply

Your email address will not be published.

sex videos
pornvideos
xxx sex