vlxxviet mms desi xnxx

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম | সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ত

0

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম যারা জানতে চান তাদের জন্য আমরা এই আর্টিকেলটি নিয়ে এসেছি। আমরা সকলেই জানি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ সকল মুসলমানদের উপর ফরজ। কিন্তু এই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের পাশাপাশি কিছু বিশেষ নামাজ রয়েছে যে নামাজ গুলো পড়লে অধিক সওয়াব পাওয়া যায় এবং এই নামাজ গুলোর মাধ্যমে মহান আল্লাহতালার কাছে ক্ষমা ও প্রার্থনা করা যায়।

আর সেই বিশেষ নামাজ গুলোর মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি নামাজ হচ্ছে সালাতুত তাসবিহ। এই নামাজের ফজিলত অনেক বেশি। কারণ এই নামাজ মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) সম্পর্কে বলেছেন- “প্রতিদিন একবার অথবা সপ্তাহে একবার অথবা মাসে একবার অথবা জীবনে একবার হলেও সালাতুত তাসবিহ নামাজ আদায় করতে হবে”। সুতরাং বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর বাণী থেকে বোঝা যায় যে সালাতুত তাসবিহ নামাজের ফজিলত কতটা বেশি হতে পারে। তাহলে চলুন সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম এবং অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে।

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম

আমরা ইতিমধ্যে সালাতুত তাজবিহ নামাজ সম্পর্কে সামান্য কিছু অংশ জেনেছি। কিন্তু যখন এই নামাজের কথা আমরা জানতে পারি তখন এই নামাজ পড়ার আগ্রহ আমাদের মধ্যে অনেকাংশে বেড়ে যায় এবং সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম সম্পর্কে জানার ইচ্ছা হয়। তাই আপনাদের জন্য আমরা নিম্নে সালাতুত তাজবিহ নামাজের নিয়ম উল্লেখ করছি-

সালাতুত তাজবিহ নামাজ চার রাকাত। আর এই নামায সুন্নাত হিসেবে নিয়ত করা হয়। তাছাড়া এই নামাজ অন্যান্য নামাজের থেকে একটু ভিন্ন। কারণ এই নামাজে একটি বিশেষ দোয়া পড়া হয়। আর এই বিশেষ দোয়া টি ৩০০ বার পড়তে হয় মোট চার রাকাত নামাজে।

আরো দেখুনঃ তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম.

সালাতুত তাজবিহ নামাজে যে বিশেষ দোয়া পড়া হয় সেই বিশেষ দোয়াটি- সুবহানাল্লাহি ওয়াল হামদু লিল্লাহি ওয়া লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার।

সালাতুত তাজবিহ নামাজের নিয়ম-

  • প্রথমে অজু করে কেবলামুখী হয়ে দাঁড়াতে হবে।
  • এরপর সালাতুত তাজবিহ নামাজের নিয়ত করতে হবে।
  • সানা পাঠ করতে হবে ১৫ বার সালাতুত তাজবিহ দোয়া পাঠ করতে হবে।
  • তারপর সুরা ফাতিহা করতে হবে এবং সূরা ফাতিহার সাথে কোরআনের যেকোনো একটি সূরা মিলিয়ে পড়তে হবে। রুকুতে যাওয়ার পূর্বে ১০ বার সালাতুত তাজবিহ দোয়া পাঠ করতে হবে।
  • এরপর রুকুতে গিয়ে রুকুর দোয়া পড়তে হবে এবং সেই রুকু থাকা অবস্থায় ১০ বার সালাতুত তাজবিহ দোয়া পাঠ করতে হবে।
  • যখন রুকু থেকে ওঠা হবে ঠিক তখন দাড়ানো অবস্থায় একটি ছোট দোয়া পড়তে হয় সে দোয়া পড়ার পর ১০ বার সালাতুত তাজবিহ দোয়া পাঠ করতে হবে।
  • এখন সিজদা দিতে হবে এবং সেজদারত অবস্থায় ১০ বার সালাতুত তাজবিহ দোয়া পাঠ করতে হবে।
  • সিজদা থেকে উঠে বসার পর ১০ বার সালাতুত তাজবিহ দোয়া পাঠ করতে হবে।
  • এভাবে পুনরায় আবার সিজদায় গিয়ে সিজদার দোয়া পাঠ করার পর ১০ বার সালাতুত তাজবিহ পাঠ করতে হবে।

ঠিক এভাবে দ্বিতীয় রাকাত, তৃতীয় রাকাত এবং চতুর্থ রাকাত সালাত আদায় করতে হবে। প্রত্যেক রাকাতে ৭৫ বার সালাতুত তাজবিহ দোয়া পাঠ করতে হবে। তাহলে মোট চার রাকাতে ৩০০ বার সালাতুত তাজবিহ দোয়া পাঠ করা হবে।

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ত

সালাতুত তাজবিহ নামাজ পড়ার পূর্বে অবশ্যই এই নামাজের নিয়ত করতে হয়। আর সেই নিয়ত হচ্ছে-

“নাওয়াইতু আন উসালিলয়া লিল্লাহি তা’আলা আরবা’আ রাকা’আতাই সালাতিল তাসবি সুন্নাতু রাসূলিল্লাহহি তা’আলা মুতাওয়াজ্জিহান ইলাজিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।”

সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ত

তবে আপনারা চাইলে নিয়ত মনে মনে করতে পারেন এই মুহূর্তে যে পড়তে হবে তা বাধ্যতামূলক নয়।

আরো দেখুনঃ সালাতুল হাজত নামাজের নিয়ম.

সালাতুত তাসবিহ নামাজের দোয়া

আমরা আগেই জেনেছি যে, সালাতুত তাজবিহ নামাজের ৩০০ বার একটি দোয়া পড়তে হয় আর এই দোয়াটি নিম্নে দিয়ে দিচ্ছি। যাতে এই দোয়া যদি বলি আপনারা খুব সহজেই আমাদের এখান থেকে গোহাটি সংগ্রহ করে মুখস্থ করে নিতে পারেন এবং সালাতুত তাজবিহ নামাজে পাঠ করতে পারেন।

سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ

সালাতুত তাসবিহ নামাজের দোয়া

সালাতুত তাসবিহ নামাজের ফজিলত

সালাতুত তাজবিহ নামাজের ফজিলত অত্যাধিক গিয়েছিলি। গেছি কারণ এ নামাজ সম্পর্কে হযরত মুহাম্মদ সাঃ এর চাচা হযরত আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু তালাকে বলেন, “ চাচা আপনি সালাতুত তাজবিহ নামাজ সপ্তাহে একবার বা  মাসে একবার  পড়তে পারেন, তবে আপনি যদি তা না পারেন তাহলে অন্তত বছরে একবার বা সারাজীবনে একবারে নামাজ পড়বেন”।

সুতরাং এ থেকে বুঝা যায় এই নামাজের ফজিলত অত্যাধিক গুরুত্বপূর্ণ এবং এই নামাজের মাধ্যমে জীবনের সকল ছোট-বড় ইচ্ছাকৃত অনিচ্ছাকৃত গুনাহ আল্লাহ তায়ালা মাফ করে দেন। সুতরাং আমাদের সকলের উচিত এ নামাজটি প্রতিদিন একবার অথবা সপ্তাহে একবার অথবা মাসে একবার অথবা বছরে একবার পড়া উচিত। যদি আমরা তা করতে না পারে তাহলে সারা জীবনে একবার হলেও এই নামাজ কি পড়া উচিত।

আরো দেখুনঃ 

উপসংহারঃ আশা করছি আপনারা আমাদের এই আর্টিকেল হতে সালাতুত তাসবিহ নামাজের নিয়ম জানতে পেরেছেন এবং এ নামাজটি মুমিনদের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা বুঝতে পেরেছেন। তাই আপনারা আর দেরি না করে এ নামাজের ফজিলত জেনে অবশ্যই সকলে নিয়মিত এই নামাজ আদায় করবেন এবং যারা এই নামাজ সম্পর্কে এখন পর্যন্ত জানেন না তারা এই নাম্বারটি নিজে জেনে অন্যদেরকে জানানোর চেষ্টা করবেন। তবে আপনারা যদি এরকম অন্যান্য নামাজ সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আমাদেরকে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

sex videos
pornvideos
xxx sex