vlxxviet mms desi xnxx

ভাজ্য কাকে বলে?

0

ভাজ্য কাকে বলে?। ভাজ্য নির্ণয়ের সূত্র

ভাজ্য কাকে বলে এ প্রশ্নের উত্তরটি সঠিক ভাবে অনেক শিক্ষার্থী দিতে পারেনা। অংকের একটি টপিক হল ভাগফল নির্ণয় করা। মূলত ক্লাস 2 থেকে আমাদের ভাগ বিষয়ক লেখাপড়া শুরু হয়। কতদিন আমরা প্র্যাকটিস এর মধ্যে থাকি ততদিন আমরা সহজভাবে ভাগফল নির্ণয় করতে সক্ষম হই। কিন্তু যখন সময়ের সাথে সাথে  আমাদের ভাগফল নির্ণয়ের অংক কমে আসে তখন আমরা প্র্যাকটিস এর অভাবে এই অংক গুলো ভুলে যাই।

অনেক সময় বিসিএস এর প্রশ্ন এরকম সহজ কিছু ভাগ আসতে দেখা যায়। কিন্তু দীর্ঘদিন প্র্যাকটিস না থাকায় আমরা অনেকেই সেগুলোর ভুল আনসার করে আসি। সময়ের সাথে সাথে আমরা ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে করতে গুন ভাগ করার সাধারণ নিয়ম গুলো ভুলে যাই। আর ভাগফল নির্ণয়ের ই একটা অংশ হচ্ছে ভাজ্য।

আজ আমরা ভাজ্য সম্পর্কে জানব। ভাজ্য কাকে বলে এই সম্পর্কে জানতে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ধৈর্য সহকারে পড়ুন। আশা করছি এই আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়লে ভাজ্য সম্পর্কে আপনাদের আর কোন প্রশ্ন থাকবে না। চলুন তাহলে শুরু করা যাক।

ভাজ্য কাকে বলে?

আমরা সবাই জানি যে মূলত ভাগ হচ্ছে একটি সংখ্যা দিয়ে আর একটি সংখ্যাকে ভাগ করে এর ভাগফল নির্ণয় করা। সহজ ভাষায় বলতে গেলে ভাজ্য হচ্ছে যে সংখ্যাকে ভাগ করা হয়ে থাকে তাই। অর্থাৎ ভাগফল নির্ণয়ের সময় আমরা যে সংখ্যাটি কে ভাগ করব সেটি হচ্ছে মূলত ভাজ্য। উদাহরন হিসেবে আমরা যদি 15 কে 5 দিয়ে ভাগ করে থাকি তাহলে আমাদের ভাগফল আসবে 3। এখানে আমরা 5 দিয়ে 15 কে ভাগ করেছি ফলে আমরা ভাগফল 3 পেয়েছি। এই যে আমরা 15 কে 5 দিয়ে ভাগ করলাম এই 15 ই হচ্ছে ভাজ্য। আশা করছি আপনারা এটি ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

আরো দেখুনঃ পূর্ণ সংখ্যা বের করার নিয়ম.

ভাজ্য নির্ণয়ের সূত্র

ভাজ্য কাকে বলে এটি নিয়ে উপরে বিস্তারিত খুব ভালো ভাবে আলোচনা করা হয়েছে আশা করি আপনারা খুব ভালোভাবে এটি উপলব্ধি করতে পেরেছেন। এখন চলুন জেনে নেওয়া যাক ভাজ্য নির্ণয়ের কিছু সূত্র। এসব সূত্র গুলো প্রয়োগ করে আমরা খুব সহজেই যেকোন ভাজ্য নির্ণয় করে ফেলতে পারব। ভাজ্য নির্ণয়ের মূলত দুটি সূত্র রয়েছে। নিচে দুটি সূত্র দেয়া হলো:

  1. নিঃশেষে শেষে যদি বিভাজ্য হয় তাহলে সেই ক্ষেত্রে ভাজ্য নির্ণয় সূত্র হবে

ভাজ্য = ভাজক × ভাগফল

  1. নিঃশেষে যদি বিভাজ্য না হয়ে থাকে তাহলে সেই ক্ষেত্রে ভাজ্য নির্ণয় সূত্র হবে

ভাজ্য = (ভাজক × ভাগফল) + ভাগশেষ

এই দুটি সূত্রই হচ্ছে মূলত ভাজ্য নির্ণয়ের জন্য। আশা করছি এই দুটি সূত্র বুঝতে আপনাদের কোন সমস্যা হয়নি।

আরো দেখুন: মূলদ এবং অমূলদ সংখ্যা কাকে বলে?

উপসংহার: মূলত এই ছিল ভাজ্য কাকে বলে এই নিয়ে আমাদের আজকের আলোচনা। আশা করছে এটি নিয়ে আপনাদের আর কোন প্রশ্ন নেই। আপনি যদি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি এটি ভালোভাবে বুঝতে পারবেন যে আসলে ভাজ্য কাকে বলে। আজকের এই আলোচনা এখানেই শেষ করছি।

যদি আপনি যদি এখনো এটি নিয়ে কনফিউশনে থাকেন যে ভাজ্য কাকে বলে তাহলে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি আরেকবার পড়ুন। আশা করছি আমি খুব সহজভাবে ভাজ্য কাকে বলে এটি আপনাদেরকে বুঝাতে সক্ষম হয়েছি। যদি আপনাদের আর কোন কিছু জানার থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানান।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

sex videos
pornvideos
xxx sex