vlxxviet mms desi xnxx

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক | Police Clearance Check

0

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করার নিয়ম | পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট

একজন ব্যক্তির ঠিক তখনই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর প্রয়োজন হয়। যখন সেই ব্যক্তি অন্য কোন দেশে উচ্চ শিক্ষার জন্য, কিংবা চাকরির জন্য অথবা ভ্রমণ করার জন্য যায়। এর পাশাপাশি আপনি যদি একজন বাংলাদেশের নাগরিক হয়ে থাকেন। এবং আপনি যখন বাংলাদেশের সরকারি সেক্টরে কোন চাকরি করবেন। তার আগে অবশ্যই এই ধরনের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স (Police Clearance) এর প্রয়োজন হয়ে থাকে। মূলত এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স হলো এক ধরনের বৈধ সার্টিফিকেট। যার মাধ্যমে এই সত্যতা প্রমাণ করে যে, নির্দিষ্ট কোন ব্যক্তির ক্ষেত্রে থানার মধ্যে কোন ফৌজদারি রেকর্ড নেই। অর্থাৎ সেই ব্যক্তি কখনোই কোন রাষ্ট্র বিরোধী কিংবা সমাজ বিরোধী অথবা কোন অন্যায় কাজের সাথে যুক্ত ছিল না। মূলত পুলিশ কর্তৃক এই বিশেষ সার্টিফিকেট কে বলা হয়ে থাকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স।

তো আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আলোচনার মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন যে, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স কি। এবং যখন আপনার এই ধরনের পুলিশ সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হবে। তখন আপনি কিভাবে এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক (Police Clearance Check) করবেন। এর পাশাপাশি আজকের আলোচনার মাধ্যমে আমি আপনাকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সম্পর্কে আরো অনেক অজানা বিষয় জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব। আর পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলো জানতে হলে আপনাকে অবশ্যই আজকের পুরো আর্টিকেল টি মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে।

গুরুত্বপূর্ণ:

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট কিভাবে পাবো? | How to get police clearance certificate?

একজন ব্যক্তি আসলে কিভাবে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করবে। সে সম্পর্কে অবশ্যই আজকের বিস্তারিত আলোচনা করব। তবে তার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, আপনি কিভাবে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাবেন। তো যদি আপনি এই ধরনের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করতে হবে। আর বর্তমান সময়ে আপনি চাইলে অনলাইন এর মাধ্যমে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। যখন আপনি অনলাইন থেকে এই কাজ টি করবেন।

তখন অবশ্যই আপনাকে নির্ধারিত চালান পরিশোধ করে দিতে হবে। এবং অনলাইনে আবেদন করার সময় যে সকল তথ্য গুলো দেওয়ার প্রয়োজন হবে। সেই তথ্য গুলো আপনাকে সঠিক ভাবে প্রদান করতে হবে। যখন আপনি এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করবেন। এবং আপনি আপনার নির্ধারিত চালান পরিশোধ করবেন। তখন সেই অনলাইন আবেদনটি আপনার নিকটস্থ থানায় পাঠিয়ে দিতে হবে। মনে রাখবেন এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার অনলাইন আবেদন টি আপনার স্থায়ী ঠিকানায় যে থানা রয়েছে। সেই থানার মধ্যে পাঠিয়ে দিবেন।

আর এই কাজ টি করার জন্য আপনার যে অনলাইন আবেদন টি রয়েছে। সেটি ফরওয়ার্ড করে পাঠাতে হবে। যখন আপনি এই কাজটি সঠিকভাবে করতে পারবেন। তখন থানা থেকে আপনার সাথে যোগাযোগ করা হবে। এবং আপনার বেশ কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে থানায় যেতে বলবে। সবশেষে আপনি যদি সকল কাজ সঠিক ভাবে করতে পারেন। এবং পুলিশের কাছে যদি আপনি একজন সন্তোষ জনক ব্যক্তি হিসেবে নির্বাচিত হন। তাহলে আপনি এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাবেন।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করতে কি কি লাগে? | What does it take to get police clearance?

তো উপরের আলোচনায় আমি আপনাকে একটা কথা বলেছি। আর সেই কথাটি হল যখন আপনি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করতে যাবেন। তখন আপনার বেশ কিছু প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রের প্রয়োজন হবে। আর এবার আমি আপনাকে জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব যে, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করতে কি কি লাগে।

  1. প্রথমত আপনাকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে।
  2. সেই সাথে আপনারা নিকট একটি পাসপোর্ট থাকতে হবে। এবং সেই পাসপোর্ট এর মেয়াদ কমপক্ষে সর্বনিম্ন তিন (৩) মাস থাকতে হবে।
  3. মনে রাখতে হবে, যে ব্যক্তির পাসপোর্ট প্রদান করা হবে। সেই ব্যক্তির স্থায়ী ঠিকানা অবশ্যই নির্দিষ্ট একটি জেলা পুলিশের আওতায় থাকতে হবে।
  4. এর পাশাপাশি আপনি যদি একজন বাংলাদেশের নাগরিক হয়ে বিদেশে অবস্থান করেন। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে সেই দেশের অবস্থানরত দূতাবাস কর্তৃক সত্যায়িত পাসপোর্ট এর স্ক্যান করা কপি প্রয়োজন হবে।
  5. তবে আপনি যদি একজন বিদেশি নাগরিক হয়ে থাকেন। তাহলে অবশ্যই আপনাকে জাস্টিস অফ পিস কর্তৃক একটি সত্যায়িত পাসপোর্ট এর স্ক্যান কপি প্রয়োজন হবে।
  6. এই সব কিছুর পরে আপনাকে চালান পরিশোধ করতে হবে। এবং এই চালান পরিশোধ করার জন্য আপনি বাংলাদেশ ব্যাংক অথবা সোনালী ব্যাংকের বিভিন্ন রকম শাখা থেকে উক্ত চালান পরিশোধ করতে পারবেন।
  7. আর এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চালান কোড নম্বরটি হল: ১-৭৩০১-০০০১-২৬৮১, এই কোড নম্বরে আপনাকে ৫০০ টাকা অফলাইন কিংবা অনলাইন চালান পরিশোধ করতে হবে।

তো যদি আপনি Police Clearance Certificate পেতে চান। তাহলে আপনার যে সকল প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রের প্রয়োজন হবে। সে গুলো সম্পর্কে উপরে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করতে কি কি লাগে সে সম্পর্কে আপনি পরিষ্কার ধারণা পেয়ে গেছেন।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করতে কত টাকা লাগে?

আসলে এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স নিয়ে আমাদের মনে একটা ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে। কারণ আমরা অনেকেই মনে করি যে এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য অনেক টাকা ব্যয় করার প্রয়োজন হয়ে থাকে। বিষয় টা আসলে সে রকম নয় বরং পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার জন্য আপনাকে কি বাবদ মাত্র ৫০০ টাকা ব্যয় করতে হবে। এবং এই টাকা আপনাকে ব্যাংকের মাধ্যমে পুলিশ এর চালান কোড নম্বরে পাঠিয়ে দিতে হবে।

এর পাশাপাশি যেহেতু বর্তমান সময়ে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। সেহেতু আপনি এই টাকা অনলাইনের বিভিন্ন মাধ্যমেও পেমেন্ট করতে পারবেন। তবে যখন আপনি অনলাইনে এই টাকা প্রদান করবেন। তখন অবশ্যই আপনার পেমেন্ট কপি টি প্রিন্ট করে নিবেন। যাতে করে আপনি পরবর্তী সময়ে থানায় সেই পেমেন্ট এর কপি প্রদান করতে পারেন।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে কোথায় যোগাযোগ করতে হয়?

আপনি একজন সাধারন ব্যক্তি হয়ে যখন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য আবেদন করবেন। এবং যখন আপনার এই Police Clearance Certificate এর যাবতীয় কাজ সম্পন্ন হবে। তখন আমরা বুঝতে পারি না যে, সেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে কোথায় যোগাযোগ করতে হয়। তো আপনি যদি এই বিষয় টি সম্পর্কে না জেনে থাকেন। তাহলে শুনুন, মূলত এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে হলে আপনাকে আপনার নিকটস্থ থানায় যোগাযোগ করতে হবে। তবে আপনি যদি আপনার থানা থেকে অনেক দূরে অবস্থান করে থাকেন। সে ক্ষেত্রে আপনাকে আপনার জেলার এস বি (SB) অফিসে যোগাযোগ করতে হবে।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স কত দিনে পাওয়া যায়? | In how many days is the police clearance available?

যেহেতু আপনার এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়া টা খুব জরুরী বিষয়। আর সে কারণে আপনার মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকবে। আর সেই প্রশ্নটি হল যে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স কত দিনে পাওয়া যায়। আর সত্যি বলতে আপনি আসলে কত দিনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাবেন। তা কখনো স্পষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। কেননা একজন ব্যক্তি আসলে কত দ্রুততার সাথে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাবে। সেটা নির্ভর করে পুলিশের তদন্তের উপর। অর্থাৎ পুলিশ যদি খুব দ্রুত তদন্ত করতে পারে। তাহলে আপনিও খুব তাড়াতাড়ি আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেয়ে যাবেন। অপর দিকে এই তদন্তে যদি অনেক সময় ব্যয় হয়।

তাহলে আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেতে হলে অনেক সময় অপেক্ষা করতে হবে এটাই স্বাভাবিক বিষয়। তবে আমার দৃষ্টিকোণ থেকে যদি আপনার থানার মধ্যে কোন অপরাধমূলক কাজের রেকর্ড না থাকে। এবং আপনার প্রদান করা তথ্যের যদি কোন প্রকারের ভুল না থাকে। তাহলে আপনি মাত্র ৮ থেকে ১০ দিনের মধ্যে এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেয়ে যাবেন।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক | Police Clearance Check Bangladesh

তো এবার আসা যাক মূল বিষয়ে। কারণ আজকে আমাদের মূল বিষয় হলো কিভাবে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করা যায়। আর এই বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত বলার আগে আমি আপনাকে একটা কথা বলব। সে কথাটি হল যে এখন আমরা অনলাইনের মাধ্যমে এই Police Clearance Certificate পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারি। তো এই আবেদন করার পরে আপনার সেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এর কাজ কতটা সম্পন্ন হয়েছে। এবং আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে আরো কতটা সময় অপেক্ষা করতে হবে। সেটা আপনি অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করে নিতে পারবেন। আর যখন আপনি অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করবেন। তখন আপনাকে বেশ কিছু কাজ করতে হবে। আর আপনার বোঝার সুবিধার্থে নিচে আমি অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করার উপায় গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক | Police Clearance Certificate Online

আপনাকে একটা বিষয় জানিয়ে রাখি যে, আপনি যখন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর জন্য অনলাইনে আবেদন করবেন। তখন আপনার সেই আবেদন টি কতটুকু কার্যকর হয়েছে। এবং পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য কাজ কতটুকু অগ্রসর হয়েছে। তা আপনি খুব সহজেই চেক করে নিতে পারবেন। তবে অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করতে হলে আপনাকে বেশ কিছু ধাপ অনুসরণ করতে হবে। আর যখন আপনি সেই ধাপ গুলো সঠিক ভাবে অনুসরণ করতে পারবেন। তখন আপনি খুব সহজেই সেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করতে পারবেন। সে গুলো হলো:

  1. সর্ব প্রথম আপনাকে বাংলাদেশ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এর মধ্যে প্রবেশ করতে হবে।
  2. আপনি গুগলের মধ্যে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স লিখে সার্চ করলেই সেই ওয়েব সাইট টি খুঁজে পাবেন। অথবা সরাসরি এখানে ক্লিক করে উক্ত ওয়েব সাইটের মধ্যে প্রবেশ করতে পারবেন।
  3. উপরের লিংকে ক্লিক করার পরে যখন আপনি বাংলাদেশ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে আপনার একাউন্টের মাধ্যমে লগইন করতে হবে।

Police Clearance Certificate Online

  1. যেহেতু আপনি অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর জন্য আবেদন করেছেন। সেহুতু অবশ্যই আপনার উক্ত ওয়েব সাইটের মধ্যে একটি অ্যাকাউন্ট থাকবে। যদি না থাকে তাহলে আপনাকে নতুন করে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে।

অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক

  1. আর যখন আপনি আপনার একাউন্টের মাধ্যমে লগইন করবেন। তখন আপনি সবার উপরে বেশ কিছু অপশন দেখতে পারবেন। যেমন Home, Apply, My Account, Search এবং Contact Us.
  2. তো এই অপশন গুলোর মধ্যে আপনাকে Search নামক অপশন এর মধ্যে ক্লিক করতে হবে।
  3. এর পরে আপনি আরো দুটি ক্যাটাগরি দেখতে পারবেন। একটি হল, Certificate এবং অন্যটি হলো Application Status.
  4.  তো এবার আপনাকে Application Status নামক অপশন এর মধ্যে ক্লিক করতে হবে।
  5. এরপরে আপনি আরও দুটি ফাঁকা বক্স দেখতে পারবেন। প্রথম ফাঁকা বক্সে আপনি Ref No. এবং দ্বিতীয় ফাঁকা বক্সে আপনি Passport No দেখতে পারবেন।
  6. তো যখন আপনি অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর জন্য আবেদন করবেন। তখন আপনার আবেদন পত্রের মধ্যে থাকা Ref No এই প্রথম বক্সে বসিয়ে দিতে হবে।
  7. এরপরে আপনার যে পাসপোর্ট এর নম্বর রয়েছে। সেটি আপনাকে নির্ভুল ভাবে বসিয়ে দিতে হবে। এবং সবশেষে আপনাকে Search বাটনের মধ্যে ক্লিক করতে হবে।

এই যাবতীয় কাজ গুলো সঠিক ভাবে করার পরে আপনাকে নতুন একটি পেজে নিয়ে যাবে। এবং সেই পেজে একটু নিচে স্ক্রল করলেই আপনি আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করে নিতে পারবেন। অর্থাৎ এর পরে আপনি আপনার নিজের নাম, আপনার পাসপোর্ট এর নম্বর, আপনার মোবাইল নম্বর, আপনার ঠিকানা সহো। বর্তমান সময়ে আপনার থানার কোন ওসির নিকট আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স টি জমা হয়ে আছে। তার নাম এবং মোবাইল নম্বর দেখতে পারবেন। সেই সাথে আপনাকে আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স টি কত দিনের মধ্যে প্রদান করা হবে। তা পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করার মাধ্যমে নির্দিষ্ট তারিখ জানতে পারবেন।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট যাচাই | Police Clearance Certificate Bangladesh

এবার একটা বিষয় চিন্তা করে দেখুন তো। মনে করুন আপনি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর জন্য আবেদন করেছেন। এবং তার কয়েক কার্যদিবস পরে আপনার নিকট এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট আসলো। এখন যদি আপনাকে প্রশ্ন করা হয় যে, আপনার নিকট থাকা সেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট টি আসল নাকি নকল। তাহলে কি আপনি তার সঠিক উত্তর দিতে পারবেন? হয়তোবা আপনি এই বিষয় টি সম্পর্কে জানলেও। আপনার মত এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত বুঝতে পারে না যে। তার হাতে থাকার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট টি আসল নাকি নকল।

তো যদি আপনিও কোনদিন এই ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি খুব সহজেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট যাচাই করতে পারবেন। আর সবচেয়ে ভালো লাগার মত বিষয় হলো। এই কাজ টি আপনি মাত্র কয়েক টি ধাপ অনুসরণ করে যাচাই করতে পারবেন। চলুন এবার তাহলে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট যাচাই করার ধাপ গুলো জেনে নেওয়া যাক।

  1. সর্বপ্রথম আপনাকে এখানে ক্লিক করে বাংলাদেশ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।
  2. যখন আপনি উপরের লিংক থেকে বাংলাদেশ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন। তখন আপনাকে একটি অ্যাকাউন্ট এর মাধ্যমে লগইন করতে হবে।
  3. তো যখন আপনি উক্ত ওয়েবসাইটের মধ্যে লগইন করবেন। তখন আপনি সবার উপরে Search নামক একটি অপশন দেখতে পারবেন। আপনাকে সেই অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  4. যখন আপনি Search এর মধ্যে ক্লিক করবেন। তখন আপনার সামনে আরো দুটি ক্যাটাগরি চলে আসবে। তো এখানে আপনাকে Certificate এর মধ্যে ক্লিক করতে হবে।
  5. এরপর আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর মধ্যে থাকা যে Ref No নম্বর টি আছে। সেটা বসিয়ে দিবেন এবং এর পরে সার্চ করলে আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর যাবতীয় তথ্য গুলো প্রদর্শন করবে।


আর এখানে প্রদর্শন করা তথ্য গুলোর সাথে যদি আপনার পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর মধ্যে থাকা তথ্যের মিল থাকে। তাহলে আপনি বুঝে নিবেন যে, আপনার হাতে থাকা পুলিশ ক্লিয়ারেন্স টি একদমই আসল। কিন্তু যদি কোন কারণে এই তথ্যের মধ্যে গরমিল থাকে। তাহলে বুঝতে হবে যে, আপনার হাতে থাকা সেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স টি নকল।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট নমুনা | Police Clearance Certificate Sample

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট নমুনা

বিদেশ যাওয়ার জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত বিদেশে যাওয়ার জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করতে চায়। আর যখন আপনি আপনার ব্যক্তিগত কোন কাজ এর জন্য। কিংবা উচ্চ শিক্ষার জন্য অথবা আপনি যখন বিদেশ ভ্রমণ করার জন্য যাওয়ার চিন্তা ভাবনা করবেন। তখন অবশ্যই আপনাকে এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সংগ্রহ করতে হবে। কারণ এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর মাধ্যমে এটা প্রমাণ করে যে। আপনি হলেন একজন নিরপরাধ ব্যক্তি। এবং আপনার দ্বারা কোন প্রকারের রাষ্ট্র বিরোধী অপরাধ কিংবা সমাজ বিরোধী অপরাধ সংঘটিত হয়নি।

আর সে কারণেই আপনাকে এই ধরনের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট দেওয়া হয়েছে। সে জন্য মূলত বিদেশে যাওয়ার জন্য এই ধরনের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট নেয়ার প্রয়োজন হয়ে থাকে। যাতে করে অন্য কোন দেশে যাওয়ার পরে আইনি সমস্যায় পড়তে না হয়।

গুরুত্বপূর্ণ:

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক F&Q

Q: পুলিশ ক্লিয়ারেন্স আসল নাকি নকল তা কিভাবে বুঝব?

A: যখন আমরা পুলিশ ক্লিয়ারেন্স হাতে পাই। তখন আমাদের মনে এক ধরনের সংশয় কাজ করে। এবং সেই সময় আমরা ভাবতে থাকি যে, এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স আসল নাকি নকল। তো আপনি চাইলে খুব সহজেই এই বিষয় টি শনাক্ত করতে পারবেন। সে জন্য আপনাকে বাংলাদেশ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। আর যে সকল কাজ করতে হবে তা উপরের আলোচনাতে সুন্দর ভাবে উল্লেখ করে দেওয়া হয়েছে।

Q: পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করার জন্য কত টাকা খরচ হয়?

A: যখন আপনি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করবেন তখন আপনাকে শুধুমাত্র চালান পরিশোধ করার জন্য ৫০০ টাকা দিতে হবে। এবং এই টাকা আপনি ব্যাংকের মাধ্যমে প্রদান করতে পারবেন। অথবা অনলাইন ব্যাংকিং এর মাধ্যমেও পরিশোধ করে দিতে পারবেন।

Q: পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট মেয়াদ কতদিন থাকে?

A: যখন আপনি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার জন্য আবেদন করবেন। এবং আপনার সেই আবেদন টি সম্পন্ন হওয়ার পরে যখন আপনারা নিকট পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এসে পৌঁছাবে। সে সময় থেকে পরবর্তী ৯০ দিন পর্যন্ত এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এর মেয়াদ থাকবে। অর্থাৎ আপনি যদি বিদেশে যাওয়ার জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করে থাকেন। তাহলে এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যেই বিদেশ যেতে হবে।

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক এবং কিছু কথা

বিভিন্ন সময় আমরা আমাদের প্রয়োজনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর জন্য আবেদন করে থাকি। আর সে কারণে এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক নিয়ে আমাদের বিভিন্ন রকম মানুষের বিভিন্ন রকমের প্রশ্ন রয়েছে। মূলত সেই প্রশ্ন গুলোর সঠিক উত্তর দেয়ার জন্য আজকের এই আর্টিকেল টি লেখা হয়েছে। কারণ আজকের এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আমি আপনাকে পরিষ্কার ভাবে বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছি যে। পুলিশ ক্লিয়ারেন্স কি এবং আপনি কিভাবে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করবেন। আর আপনি যাতে কোন প্রকার ঝামেলা ছাড়াই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেক করতে পারেন।

সে জন্য আমি প্রতিটা ধাপকে স্টেপ বাই স্টেপ বুঝিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছি। আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি অনেক হেল্প পেয়েছেন। আর এই ধরনের হেল্পফুল তথ্য গুলো সহজ ভাষায় জানতে হলে, নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করবেন। পুরো আর্টিকেল টি পড়ার জন্য আপনাকে জানাচ্ছি অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

sex videos
pornvideos
xxx sex