vlxxviet mms desi xnxx

নীরবতা নিয়ে উক্তি

0

নীরবতা নিয়ে উক্তি (স্ট্যাটাস, বাণী ও ক্যাপশন)

প্রিয় পাঠক যদি আপনি নীরবতা নিয়ে উক্তি সম্পর্কে জানতে চান, যদি আপনি নীরবতা নিয়ে বাণী সম্পর্কে জানতে চান, তাহলে আজকের এই আর্টিকেল টি আপনার জন্য অনেক বেশি হেল্পফুল হবে। কারণ আজকের এই আর্টিকেলে আমি সেরা কিছু জনপ্রিয় নীরবতা নিয়ে উক্তি শেয়ার করব আপনার সাথে। আশা করি আজকের শেয়ার করা উক্তি গুলো আপনার কাছে অনেক ভাল লাগবে এবং আপনার হৃদয় ছুয়ে যাবে। যদি আপনি আজকের এই উক্তি গুলো সম্পর্কে জানতে চান, তাহলে অবশ্যই পুরো লেখাটা মন দিয়ে পড়বেন। তাহলে কথা দিচ্ছি আপনার কাছে আজকের শেয়ার করা নীরবতা নিয়ে উক্তি গুলো অনেক অনেক বেশি ভালো লাগবে।

আরো দেখুন: অহংকার নিয়ে উক্তি.

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

মনে রাখবেন নীরবতা তখনই জাগ্রত হবে যখন আপনার মধ্যে বলার মতো কোন ভাষা থাকবে না আপনার মধ্যে কথা বলার মত কোন শক্তি থাকবে না। ঠিক এই সময়ে আপনার মধ্যে থাকা নীরবতা জাগ্রত হবে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যদি আপনি একজন ভালো শ্রোতা হতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনাকে নীরবতা পালন করে অন্যের কথা গুলো মন দিয়ে শুনতে হবে। আর সেজন্য আপনার মধ্যে নীরবতা নামক এই গুন টি বিরাজমান থাকতে হবে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

এই পৃথিবীতে যেসব ব্যক্তি নীরবতাকে বুঝতে পারেনা, সেই ব্যক্তির নিকট তোমার উচ্চারিত শব্দ সে বুঝতে পারবে না।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

কোন সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার পেছনে কখনোই দূরত্ব দায়ী থাকে না। বরং একটি সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার পেছনে মূল দায়ী হলো নীরবতা।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যে ব্যক্তি তোমার ভালোবাসার মূল্য দিতে জানে না, তার কাছে তোমার নিরবতা থাকাই শ্রেয়। কখনো সে ব্যক্তির কাছে প্রমাণ করতে যাবেনা যে তুমি তাকে অনেক বেশি ভালবাসো। কেননা তার কাছে তোমার ভালবাসার কোন মূল্য নেই।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যদি তুমি নীরব থাকো, তাহলে সেই নীরবতা কখনোই তোমাকে রক্ষা করতে পারবে না।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যখন সত্যকে প্রকাশ না করে নীরবতা কে প্রাধান্য দেওয়া হয়, তখন সেই নীরবতা মিথ্যের সমান হয়ে যায়। কারণ সত্য প্রকাশ না করে নীরবতা পালন করাও কিন্তু এক ধরনের মিথ্যার আশ্রয় নেওয়া।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যদি আপনি আপনার জীবনের সবচেয়ে বড় কোন শক্তির আধার খুঁজে থাকেন। তাহলে জেনে রাখুন যে, আপনার জীবনের সবচেয়ে বড় শক্তির আধার হলো আপনার মধ্যে থাকা নীরবতা।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

আপনি যদি ভেবে থাকেন যে মিথ্যা শুধুমাত্র কথার মাধ্যমে প্রকাশ করা যায়। তাহলে আপনার ধারণা সম্পূর্ণ ভুল, কারণ সত্যকে প্রকাশ না করে আপনি যদি নীরবতা পালন করেন, সেক্ষেত্রে কিন্তু আপনি মিথ্যার আশ্রয় নেবেন। এবং এর মাধ্যমেও কিন্তু মিথ্যাকে প্রকাশ করা সম্ভব।

আরো দেখুন: শিক্ষামূলক উক্তি।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

আপনি জানলে অবাক হয়ে যাবেন, কারণ আমাদের জীবনে করার সব থেকে বাজে মিথ্যা গুলো সব সময় নীরব থাকার কারণেই সম্পন্ন হয়ে থাকে। কারণ অধিকাংশ সময় আমরা আমাদের মধ্যে থাকা সত্য গুলোকে প্রকাশ না করে নীরব থাকি। যার ফলে আমাদের জীবনের সবচেয়ে বাজে মিথ্যা গুলো এই নিরবতার মাধ্যমে সাধিত হয়ে থাকে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যখন আপনার জীবনের কোনো পরিস্থিতিতে নীরব থাকা মিথ্যা হয়ে যাবে। তখন আপনি কোনভাবেই নিজেকে নিরব রাখতে পারবেন না। কেননা সেই মুহুর্তে আপনি আপনার মধ্যে থাকা মিথ্যাকে সত্য প্রমাণ করার জন্য প্রতিনিয়ত শব্দের প্রয়োগ করে যাবেন।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যখন তোমার কাছে কোন কিছু বিষয়ে সম্মতি সম্পর্কে জানা হবে। সেই সময়ে তুমি যদি প্রখরভাবে নিরব থাকো, তাহলে বুঝে নিতে হবে যে সেই কাজে তোমার যথেষ্ট পরিমাণে সম্মতি রয়েছে। কারণ প্রখর নীরবতা কিন্তু সম্মতির লক্ষণ।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

কোন একজন ব্যক্তির মধ্যে থাকা ক্ষমতার সবচেয়ে বড় অস্ত্র টি হল নীরবতা। কেননা একজন ব্যক্তি হুট করেই নিজের এই অস্ত্র কে ব্যবহার করে না। বরং অন্তিম পর্যায়ে যাওয়ার পরেই কোন একজন মানুষ তার এই নীরবতা নামক মহা অস্ত্রের ব্যবহার করে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

মনে রাখবেন নীরবতা কখনোই ফাপা বুলির মত নয়, বরং নীরবতা হলো লক্ষ লক্ষ, কোটি কোটি উত্তরে ভর্তি। আর যে উত্তর গুলো একবার বলা শুরু হলে, তুমি কোনভাবেই তাকে থামিয়ে রাখতে পারবে না।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

আপনি কি জানেন কথোপকথন এর মহান শিল্পের নাম কি! যদি আপনি না জেনে থাকেন তাহলে শুনে রাখুন, সেটি হলো যে আমাদের উচ্চারিত হওয়া কথোপকথন এর মধ্যে সবচেয়ে বড় শিল্প হল নীরবতা। যে শিল্পের কোনো জুড়ি নেই।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

আমাদের জীবনের সকল বন্ধু-বান্ধবদের মধ্যে আমরা কখনই তাদের বলা কথা গুলো কে মনে রাখবো না। বরং আমরা আমাদের সারাটি জীবন তাদের নীরবতা কে মনে রাখব।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

জীবনে চলার পথে একটা কথা সর্বদাই মাথায় রাখবেন। আর সেই কথাটি হলো কোনো একজন মানুষের বলা বক্তৃতা হলো সময়ের মতো গভীর। কিন্তু অন্য একজন মানুষের মধ্যে থাকা নীরবতা হলো অনন্তকালের জন্য গভীর।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

নীরবতা হলো কোন একজন ব্যক্তির মধ্যে থাকা সবচেয়ে বড় একটি হাতিয়ার। আর এই হাতিয়ার এর প্রয়োগ তখনই হবে যখন সেই ব্যক্তিটি কথা বলার মত ভাষা হারিয়ে ফেলবে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

নীরবতাও হলো আমাদের এক ধরনের ভাষা, যে ভাষা সব মানুষের বোঝার মত ক্ষমতা থাকেনা।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যখন কোন শব্দ অস্পষ্ট হয়ে যায়, যখন কোন ছবি অপর্যাপ্ত হয়ে যায়, তখন আমাদের নীরবতায় সন্তুষ্ট থাকা উচিত।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

জীবনে চলার পথে একটা কথা সবসময় মেনে চলার চেষ্টা করবেন। আর সেই কথাটি হলো অপ্রয়োজনীয় কথা বলার চাইতে নীরবতার থাকা হলো অনেক বুদ্ধিমানের কাজ।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যদি আপনাকে কোন কিছু প্রশ্ন করা হয়, এবং সেই প্রশ্নের উত্তরে আপনি যদি নীরব থাকেন। তাহলে ধরে নেয়া হবে যে আপনি তার প্রশ্নের উত্তরে সম্মতি প্রদান করছেন। কারণ নীরবতাও কিন্তু এক ধরনের সম্মতি প্রদান করার মধ্যে পড়ে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যখন আপনি কোন কিছু বলতে চাইবেন, তখন ভেবে দেখুন যে সেই কথাটি বলা ভাল হবে নাকি সেই কথা না বলে নিজেকে নিরব রাখাই ভাল হবে। যদি এটা ভাবার পর আপনার মনে হয় যে নীরব থাকার চেয়ে কোন কিছু বলা ভালো, তাহলে আপনি তখনই সেই কথাটি বলবেন। অন্যথায় আপনার নিরব থাকাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

একজন মানুষের মধ্যে থাকা আর শব্দ গুলো শব্দের শূন্যতা থেকেই বেরিয়ে আসে। সেই শূন্যতা থেকে কোনো একজন মানুষের নির্যাস ফুটে ওঠে, এই নিরবতা থেকেই সমস্ত সৃজনশীলতার জন্য স্থিরতা বিরাজ করে। যা কিছু তৈরি হয়েছে তা কিন্তু এই নীরবতা থেকেই বেরিয়ে আসে। কেননা নীরবতা মূলত শূন্যতা থেকে কোন চিন্তার উদ্ভব হয়ে থাকে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

এই পৃথিবীতে বসবাসরত প্রত্যেকটা মানুষের মধ্যেই নীরবতা বিরাজমান। এবং এই নীরবতার বিশালতা এতটাই যে, তাকে মহাবিশ্বের সাথে তুলনা করলেও কোনো প্রকার ভুল হবেনা। যখন কোনো একজন ব্যক্তি কোন মুহূর্তে নিজেকে নীরব অনুভব করে, ঠিক তখনই সেই ব্যক্তির মনে প্রশ্ন জাগে যে সে আসলে কে, আর কেনই বা সে এই পৃথিবীতে এসেছে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যখন কেউ নীরবতা নামক সবচেয়ে বড় অস্ত্র টির ব্যবহার করবে, তখন সেই নীরবতা নামক অস্ত্রের আঘাত কোন শব্দের চেয়েও বেশি আঘাত করবে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যে ব্যক্তি সর্বদা জন্য কোলাহলের মধ্যে ঘুমায় সেই ব্যক্তির ঘুম ভাঙ্গানোর জন্য নীরবতা প্রয়োজন হয়।

আরো দেখুন: মোটিভেশনাল উক্তি।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যদি জীবনের কোন সময়ে আপনার কোন কিছু শেখার প্রয়োজন হয়ে থাকে, তাহলে অবশ্যই সেটি শেখার সময় নিজেকে নিরব রাখার চেষ্টা করবেন। কেননা এই নিরবতার মাধ্যমে আপনি অনেক কিছু শিখতে পারবেন, যা কথা বলার মাধ্যমে শিখতে পারবেন না।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

জীবনে চলার পথে যখন আপনার অনেক কষ্ট হবে, তখন কখনোই হাহাকার করবেন না, কখনোই সেই কষ্টে আতঙ্কিত হবেন না। বরং সেই সময়ে আপনি চুপ থাকুন, নিজেকে নিরব রাখুন, আর ভাবতে থাকুন সেই দুঃখ থেকে বাঁচার উপায় কি। কিভাবে এই বিপদ থেকে উদ্ধার হওয়া যাবে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

কোন একজন বোকা ব্যক্তি তার বক্তৃতার মাধ্যমে নিজেকে পরিচিত করে থাকে। কিন্তু কোনো একজন জ্ঞানী ব্যক্তি নিজেকে পরিচিত করার জন্য কখনোই বক্তৃতার আশ্রয় নিবে না। বরং সেই ব্যক্তি নিজেকে পরিচয় করার জন্য নীরবতার আশ্রয় নিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবে।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

জীবনে সব ধরনের সুযোগ পাশ কাটিয়ে গেলেও কখনোই নীরবতা পাওয়ার সুযোগ কে অবহেলা করবেন না। কারণ নিজেকে নিরব রাখার মতো সুযোগ আপনি দ্বিতীয়বার পাবেন না।

❣নীরবতা নিয়ে উক্তি❣

যখন আপনি কোন কিছু নিয়ে বারবার ভাববেন, তখন আপনি কখনোই সেরকম কিছুকে খুজে পাবেন না। কিন্তু যখন আপনি নিজেকে নিরব রাখবেন, নিরব মনে কোন কিছু চিন্তা করবেন, তখনই আপনি সত্যের সন্ধান পাবেন। আর এই সত্যই আপনাকে সফলতার দিকে ধাবিত করবে।

নীরবতা নিয়ে কিছুকথা

যদি আপনি একটু ভেবে দেখেন তাহলে আপনি দেখতে পারবেন যে, নীরবতা আমাদের অনেকেই অনেক রকম বাজে পরিস্থিতি থেকে রক্ষা করেছে। মূলত এই নীরবতার কারণে আমরা আমাদের নিজেকে অনেক বড় বড় পাপ থেকে রক্ষা করতে পারি। যেমন ধরুন, আপনি আপনার জন্মদাতা পিতার সাথে কোন একটি বিষয়ে কথা বললেন, এবং কথা বলতে বলতে কোন একটা পর্যায়ে আপনি নিজের অজান্তেই এমন কিছু বলে ফেললেন যেটাতে আপনার জন্মদাতা পিতা অনেক রেগে গেল। কিন্তু সেই সময় যদি আপনি নিজেকে নীরব রাখতে পারতেন যদি আপনি কোন কথা না বলতেন, তাহলে কিন্তু এমন অদ্ভুত পরিস্থিতির সৃষ্টি হতো না।

যদিও এটি একটি সাধারণ উদাহরণ, তবে এই উদাহরণ থেকে আপনাকে অনেক কিছুই শিক্ষা নিতে হবে। জীবনে চলার পথে অনেক কিছুই বলার প্রয়োজন পড়বে, কিন্তু যেখানে নীরবতা থাকা মানেই বুদ্ধিমানের কাজ, সেখানে আপনি যদি অপ্রয়োজনীয় কথা বলেন। তাহলে সেটা হবে আপনার বোকামির পরিচয়। কিছু কিছু সময় আসবে যে সময় গুলোতে নিজেকে নিরব রাখতে হবে, আবার কিছু কিছু সময় যে সময় গুলোতে আমাদের কথা বলতে হবে। কিন্তু কখন কি করতে হবে সেটা নির্বাচন করতে হবে আপনাকে নিজেই। আপনার বিবেক এবং বুদ্ধি দিয়েই বুঝে নিতে হবে যে কখন এবং কোন পরিস্থিতিতে আপনাকে নীরব থাকা উচিত, এবং কখন আর কোন পরিস্থিতিতে আপনার কথা বলা উচিত।

আরো দেখুন:

কিন্তু সব ক্ষেত্রে যে আপনি নিজেকে নিরব রাখবেন, বিষয়টা কিন্তু এমন নয়। কেননা কিছু কিছু সত্য থাকে যেগুলো কে অবশ্যই আপনাকে মুখেই বলে প্রকাশ করতে হবে। কিন্তু সেই সত্য গুলোকে বলার সময় আপনি যদি নিজেকে নিরব রাখেন, তাহলে মিথ্যা বলার সাথে সেই নিরবতার কোন পার্থক্য থাকবে না। তাই সেই পরিস্থিতি গুলোতে আপনি আপনাকে কোনো ভাবেই নিরব রাখবেন না। কেননা সত্য কখনো চাপা থাকেনা, আর সত্যকে প্রকাশ না করে নীরব থাকা এক ধরনের মিথ্যার আশ্রয় নেয়া। তাই এরকম কোন পরিস্থিতি আসলে অবশ্যই সেই পরিস্থিতিতে কথা বলুন, নিজেকে প্রকাশ করুন। তাহলেই আপনি সত্যের পথে চলতে পারবেন।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.

sex videos
pornvideos
xxx sex