ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয়

0

ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয়: আপনি কি ভিসা কার্ড সম্পর্কে জানতে চান? ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয় তার নিয়মাবলী সম্পর্কে জানতে আগ্রহী ?

সময় চির বহমান। বহুকাল পূর্বে মানুষ নিজের স্বপ্ন পূরণে জন্য, তার নিত্য প্ৰয়োজনীয় লেনদেনের জন্য ক্যাশ টাকা নিজের সংগ্রহে রাখতেন। কিন্তু সময় পাল্টেছে, সেই সাথে সময়ের সময়ের সাথে মানুষের চাহিদা পরিবর্তন হয়েছে। প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে মানুষ হয়ে উঠেছে  আধুনিক। সেই আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে মানুষের জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে। তাই আজ মানুষ ক্যাশ টাকা বিহীন শুধুমাত্র কার্ডের মাধ্যমে নিজেদের দৈনন্দিন লেনদেন সম্পন্ন করে থাকে। বর্তমানে একটি বহুল আলোচিত এবং জনপ্রিয় একটি কার্ড হল ভিসা কার্ড। ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয় তা জানতে বিস্তারিত চোখ রাখুন আজকের আলোচনায়।

ভিসা কার্ড কি ?

দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত কার্ড গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি কার্ড হল ভিসা কার্ড। বর্তমানে নগদ অর্থ বহন করা বেশ বিপজ্জনক হওয়ার ফলে আজকাল মানুষ তাই কার্ড বহন করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোদ করে। যেখানে সেখানে কার্ড বহন করা ঝামেলাহীন বিধায় আজকাল মানুষেরা অর্থ লেনদেন করতে কার্ডের প্রতি আস্থা রাখছে শতভাগ। অন্যান্য কার্ডের ক্ষেত্রে দেখা যায় যে,অনেক সময়ে কেনাকাটা কিংবা অর্থ লেনদেনের ক্ষেত্রে নেটওয়ার্ক পাওয়া নিয়ে বেশ বিপত্তি দেখায়। কিন্তু ভিসা কার্ড এমন একটি কার্ড যা যেকোনো সময়ের মুহূর্তের মধ্যে অর্থ লেনদেনের ক্ষেত্রে এক্সেস পাওয়া যায় বিধায় সকলে আজকাল ভিসা কার্ড নিজের সংগ্রহে রাখছে।

গ্রাহকসুবিধার কথা চিন্তা করে ভিসা কার্ডকে পাঁচভাগে ভাগ করা হয়েছে। যথা:

  • ভিসা ক্লাসিক কার্ড। 
  • ভিসা সোনার কার্ড।  
  • ভিসা প্লাটিনাম কার্ড।
  • ভিসা স্বাক্ষর  কার্ড।
  • ভিসা অসীম কার্ড।

আপনি আপনার আর্থিক অবস্থা এবং সেই সাথে আপনার সুবিধা  অনুযায়ী বেছে নিতে পারেন আপনার ভিসা কার্ডটি। তবে ভিসা কার্ড পাওয়ার জন্য সবার আগে ভিসা কার্ডের জন্য আবেদন করতে হবে। ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয় তা জানতে চোখ রাখুন।

ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয়

মানুষের জীবনে আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে শুধুমাত্র প্রযুক্তির নানামুখী অবদানের ফলে। প্রযুক্তির কল্যাণে আমাদের জীবন হয়ে উঠেছে সহজ, সরল এবং সাবলীল। বর্তমানে সর্বত্র প্রযুক্তির ছোঁয়ার ফলে আজকাল আমাদের জীবনের সকল ক্ষেত্রে বেড়েছে কাজের গতিশীলতা। আজকাল মানুষ তাই মানুষ প্রযুক্তির রঙে রাঙাতে নিজেকে ব্যস্ত সবাই। মানুষের ক্রমবর্ধমান জীবনযাত্রার ফলে এখন তাই তাদের দৈনন্দিন জীবনের কেনাকাটা থেকে শুরু করে সকল নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র থেকে শুরু করে সকল ক্ষেত্রে ব্যবহার করছে ভিসা কার্ড।

গুরুত্বপূর্ণ: ক্রেডিট কার্ড কিভাবে বানাবো

ব্যাংকে প্রযুক্তি ছোঁয়ার  ফলে আজ গ্রাহকদের নিত্যদিনের প্রয়োজন পূরণ করতে ব্যবহার করে থাকে কার্ড।  কার্ডসমূহ গ্রাহকদের নানা ধরণের সুযোগ-সুবিধা প্রদানের ফলে, গ্রাহকগণ কার্ডের উপর নির্ভশীল হয়েছে। ব্যাংক সমূহ যত ধরনের কার্ড সুবিধা প্রদান করে থাকে তার মধ্যে অন্যতম হল ভিসা কার্ড। ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয় তা আলোচনা করা হবে আজকের আর্টিকেলটিতে।

ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয়

ভিসা কার্ড মূলত এমন একটি কার্ড, যা আপনি আপনার দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন ধরনের অর্থ লেনদেন করার ক্ষেত্রে ব্যবহার করে থাকেন এই কার্ড। তাই আজকাল সকলের কাছে বহু আকাঙ্খিত একটি কার্ড হল ভিসা কার্ড।

কিন্তু অনেকেই জানেন না যে, কিভাবে করতে হয় ভিসা কার্ড। চলুন তাহলে জেনে নেই কিভাবে করতে হয় ভিসা কার্ডের নিয়মাবলী সমূহ-

  • কিছু কিছু সরকারি কিংবা বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক সমূহ রয়েছে তাদের গ্রাহকদেরকে নির্দিষ্ট পরিমাণ চার্জের বিনিময়ে  ভিসা কার্ড সরবরাহ করে থাকে। সেই সকল ব্যাংক হল:
  • ডাচ বাংলা ব্যাংক। 
  • ইসলামী ব্যাংক
  • শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক।

এছাড়াও আরও নানান ব্যাংক ভিসা কার্ড সুবিধা প্রদান করে থাকে । উক্ত ব্যাংক ছাড়াও আরও কিছু সরকারি কিংবা বেসরকারি ব্যাংকসমূহে  আপনি একাউন্টে চালু করে আপনি তাদের গ্রাহক হলে, নির্দিষ্ট কিছু সংখ্যক  চার্জের বিনিময়ে নিতে পারবেন ভিসা কার্ড সুবিধা।

ভিসা কার্ড করার নিয়ম

Visa Card কিভাবে করব তা হল:

  • প্রথমে আপনাকে ভিসা কার্ড সুবিধা প্রদানকারী কোন ব্যাংক বরাবর যেতে হবে।
  • সেই ব্যাংকে গিয়ে কাজে নিয়োজিত এজেন্ট বরাবর গিয়ে আপনাকে আপনার একাউন্ট করতে হবে। মূলত ভিসা কার্ড নিলে একটি একাউন্ট থাকতে হবে।
  • ব্যাংক একাউন্ট করতে আপনার যা যা লাগবে তা হলো:
  • জাতীয় পরিচয়পত্রের ফাটোকপি। 
  • ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি। 
  • পূর্বে কোন ব্যাংকে একাউন্ট থাকলে তার গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র। 
  • নমিনি আইডি কার্ড ও ফটোকপি।

সকল গুরুত্বপূর্ণ কাগজ আপনাকে ব্যাংকে  নিয়োজিত এজেন্টে কে দিতে হবে। আপনার একাউন্ট খোলা হয়ে গেলে আপনাকে একটি কার্ড দেওয়া হবে।

মূলত আপনি নিজের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে আপনার জন্য ব্যাংক হিসাব খুলবেন। কিন্তু আপনি যদি ব্যাংক অ্যাকাউন্টের পাশাপাশি ভিসা কার্ড নিতে চান তাহলে আপনাকে ব্যাংক ভেদে ৩০০ টাকার কম বেশি অতিরিক্ত চার্জ কাটতে পারে।

ভিসা কার্ড থেকে বিকাশে টাকা আনার নিয়ম

আপনি চাইলে একদম ঘরে বসে আপনার বিকাশ একাউন্টে টাকা আনতে পারবেন আপনার নিজের ভিসা কার্ড থেকে। ভিসা কার্ড থেকে বিকাশে টাকা আনার নিয়ম জানতে হলে অনুসরণ করুন নিচের ধাপসমূহ:

  • বিকাশ ঠিক ভিসা কার্ডের মাধ্যমে টাকা আনতে হলে আপনাকে সবার আগে বিকাশ এপ্লিকেশন ডাউনলোড করে নিতে হবে। আপনাদের সুবিধার কথা চিন্তা করে আমি নিচে এপ্লিকেশন লিংকটি  যুক্ত করে দিচ্ছি। 
  • লিংকঃ
  • https://play.google.com/store/apps/

ভিসা কার্ড থেকে বিকাশে টাকা আনার নিয়ম

  • বিকাশ এপ্লিকেশন ডাউনলোড করার পর আপনাকে এপ্লিকেশন এ নিজের একাউন্ট ওপেন করে নিতে হবে।
  • একাউন্ট ওপেন করে বিকাশ একাউন্টের হোম স্ক্রিনে এড মানি অ্যাকাউন্টে ক্লিক করতে হবে।

ভিসা কার্ড থেকে বিকাশে টাকা আনার নিয়ম

 

  • সেখানে কার্ড টু বিকাশ মেনুবার থেকে কার্ড অপশন থেকে ভিসা সিলেক্ট করুন।

ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয় ভিসা কার্ড কিভাবে করব

  • আপনি যে বিকাশ নাম্বারে টাকা আনতে চান সেই বিকাশ একাউন্টের নাম্বার এড করে দিন।

ভিসা কার্ড করার নিয়ম

  • তারপর আপনার কার্ড সংক্রান্ত তথ্যাদি যেমনঃ আপনার ভিসা কার্ডের নম্বর, ভিসা কার্ডের মেয়াদ এবং ভিসা কার্ডের ভেরিফিকেশন নম্বর যুক্ত করে সেন্ড করুন।

ভিসা কার্ড কি ফ্রি ভিসা কার্ড

  • তারপর পাঠানো ওটিপি দিয়ে আপনার কাঙ্খিত লেনদেন সম্পন্ন করূন।

ভিসা কার্ড দিয়ে মোবাইল রিচার্জ

ভিসা কার্ডের নানা ধরণের সুবিধার কারণে ভিসা কার্ড জায়গা করে নিয়েছে সকলের মনে। আপনি চাইলে ভিসা কার্ড দিয়ে কেনাকাটা থেকে শুরু করে করতে পারবেন আপনার মোবাইল রিচার্জ। সেই জন্য আপনাকে নিচের নিয়ম গুলো করতে হবে অনুশীলন। ভিসা কার্ড গ্রাহকরা মোবাইলের মাধ্যমে বিকাশের সাহায্যে খুব সহজে রিচার্জ করতে পারবেন তাদের মোবাইলের মাধ্যমে।

ভিসা কার্ডের মাধ্যমে মোবাইলে প্রথমে আপনাকে এড মানি যুক্ত করতে হবে। বিকাশ এপ্লিকেশন দিয় আপনি একদিনে সর্বোচ্চ পাঁচবার এড মানি করতে পারবেন। আপনি মানে সর্বোচ্চ দুই লক্ষ টাকা ভিসা কার্ড থেকে এড মানি তুলতে পারবেন।

আপনি প্রথমে উপরে আলোচিত নিয়মে আপনার একাউন্ট এ ভিসা কার্ড থেকে এড মানি যুক্ত করবেন।সেই এড মানি আপনার বিকাশ একাউন্ট এ আশার পর আপনি সহজে মোবাইল রিচার্জ অপশন থেকে কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই মোবাইলে রিচার্জ করতে পারবেন আপনার সহ যেকোনো নাম্বারে যত খুশি ঠিক ততবার।

উপসংহারঃ সময়ের সাথে সাথে মানুষজন তার ব্যক্তিগত নিরাপত্তার খাতিরে ব্যাংক কার্ড ব্যবহার শুরু করে দিয়েছে। ভিসা কার্ড গ্রাহকদের লেনদেন, গ্রাহকের কেনাকাটা সহ আরও নানান ধরণের ক্ষেত্রে নিত্যনতুন সুযোগ সুবিধা প্রদান করে বিধায় দিন দিন ভিসা কার্ড ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে। আপনি যদি ভিসা কার্ড হোল্ডার হতে চান তাহলে শুরুতেই ভিসা কার্ড কিভাবে করতে হয় তার নিয়ম অনুসরণ করে সংগ্রহ করতে পারবেন ভিসা নিজের ভিসা কার্ড।

Leave A Reply

Your email address will not be published.