vlxxviet mms desi xnxx

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২১

0

আপনি কি বিকাশ একাউন্ট খুলতে ইচ্ছুক ? বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চান? জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২১

সময় খুব দ্রুত নিজের গতিপথ পরিবর্তন করে দেয়। তা না হলে, বেশ কয়েক বছর আগে মানুষ তার প্রিয়জনের কাছে দূর দূরান্ত থেকে অর্থ পাঠাতেন কারো না কারো মাধ্যমে। তখন যোগাযোগ ব্যবস্থার এতটা উন্নত ছিলনা বিধায় মাস শেষে, বছর শেষে সেই টাকা পৌঁছাতো তার প্রিয়জনদের কাছে। কিন্তু এটি ছিল একটি  দীর্ঘমেয়াদি প্রক্রিয়া। টাকা মানুষ তার প্রয়োজনে ব্যবহার করে। কিন্তু প্রয়োজন যখন ফুরিয়ে যায়, তখন সেই অর্থ আর কোনো কাজে আসেনা। তাই অর্থের আদান-প্রদানের প্রয়োজনে মানুষের সেই সংকটে মোকাবেলায় মানুষের পাশে এসেছে বিকাশ।

বিকাশ কি ?

এক সময় ঘরে বসে, মুহূর্তের মধ্যে টাকা পাঠানোর কথা কল্পনাই করা সম্ভব ছিল না। দেশ-বিদেশে টাকা আদান প্রদানে শুধুমাত্র ব্যাংকের উপর নির্ভর করতো। কিন্ত বিকাশের ফলে মানুষের সেই সমস্যা সমাধান হয়েছে। এখন মানুষ তার প্রিয়জনদের কাছে মুহূর্তের মধ্যে টাকা আদান- প্রদান করতে পারছেন কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই। তাই টাকা লেনদেন এর ক্ষেত্রে বিকাশ হয়ে উঠেছে আমাদের আশা এবং ভরসার একমাত্র কেন্দ্রবিন্দু। বিকাশ এমন একটি এপ্লিকেশন কিংবা একটি মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবস্থা যার মাধ্যমে যেকোনো সময় অর্থ লেনদেনসহ আরো নানা ধরনের সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন এর গ্রাহকগণ। নিচে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম দেখানো হলো।

আরো পড়ুন: রকেট একাউন্ট খোলার নিয়ম

বিকাশের সুবিধা

বিকাশ আগমনের ফলে আমাদের দৈনন্দিন জীবন হয়ে উঠে অনেক সহজ। আমাদের কাজ কর্মে অর্থ লেনদেনের ক্ষেত্রে সব সময় পাশে রয়েছে বিকাশ। চলুন জেনে আসি বিকাশে সুবিধার সমূহের কথা –

  • বিকাশের ফলে আমরা মুহূর্তে পৃথিবীর এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে অর্থ লেনদেন  করতে পারি। 

  • বিকাশের মাধ্যমে আমরা আমাদের যাবতীয় বিল সমূহ যেমন: ইন্টারনেট বিল, মোবাইল রিচার্জ, বিদ্যুৎ বিল সকল ধরণের বিল সমূহ বিকাশের মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারি। 

  • বিকাশের মাধ্যমে ঘরে বসে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে কেনাকাটা করতে পারি।

  • এছাড়াও অনেক ব্যাংকের থেকে টাকা বিকাশ একাউন্ট এ ঘরে বসে ট্রান্সফার করে মুহুর্তে টাকা উঠানো যায়। 

  • অনেক সময় বিকাশ এস এম ই উদ্যোক্তাদের লোন সুবিধা দিয়ে থাকে।

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

গ্রাহক সেবার দিক থেকে বিকাশ এগিয়ে রয়েছে সবার আগে। শুধু লেনদেন ছাড়াই আরো অনেক ধরণের সেবা গ্রাহকদের প্রদান করে বিধায়, বিকাশ গ্রাহকদের বিশ্বাস অর্জন করতে পারছে। তাই আজকাল সবাই বিকাশ এর সেবা গ্রহণ করতে চায়। কিন্তু অনেকেই আমরা জানিনা কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হয়। চলুন তাহলে, জেনে নেই বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে। 

বিকাশ একাউন্ট আপনি দুইভাবে খুলতে পারবেন:

  • এপ্লিকেশনের  মাধ্যমে। 

  • এজেন্টের মাধ্যমে। 

এপ্লিকেশন এর মাধ্যমে ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট:

আপনি চাইলে নিজে ঘরে বসে মুহূর্তের মধ্যে খুলতে পারেন আপনার বিকাশ একাউন্ট। তার জন্য আপনাকে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করতে হবে –

  • প্রথমে আপনাকে আপনার এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোন থেকে গুগল প্লে সফটওয়্যার থেকে  বিকাশ এপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে নিতে হবে। আপনাদের সুবিধার কথা চিন্তা করে আমি সেই লিংক আমি আপনাদের নিচে দিয়ে দিচ্ছি –https://play.google

এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

  • তারপর এপ্লিকেশনে গিয়ে রেজিস্টার অপশনে গিয়ে প্রথমে আপনাকে যে মোবাইল নম্বর সচল রয়েছে অথবা যে মোবাইল নম্বরে আপনি বিকাশ একাউন্ট খুলতে চান যেখানে দিতে হবে।

  • তারপর আপনার অপারেটর অপশন বেছে নিয়ে ল্যাংগুয়েজ অপশন ক্লিক করতে হবে। 

  • তারপর সব নিয়মাবলী এবং শর্ত মেনে নিয়ে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের দুপাশের ছবি তুলতে হবে। 

  • বিকাশ থেকে সব তথ্য পূরণ হবে। পরবর্তীতে আপনাকে আরো কিছু তথ্য দিতে হবে। যেমন লিঙ্গ, পেশা, আয়ের উৎস। 

  • তারপর পরিপূর্ণ আলোর মধ্যে আপনার একটি ছবি তুলতে হবে। 

  • এরপর বিকাশ থেকে একটি কনফার্মেশন এসএমএস আসবে। 

  • সব শেষে বিকাশের কোড *247# ডায়াল করে বিকাশের ৫ ডিজিটের একটি পিন নম্বর সেট করে নিলেই আপনার একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে। 

এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম:

এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খুলতে চাইলে সবার আগে আপনাকে আপনার আশেপাশে নিকটস্থ বিকাশ এজেন্টের কাছে যেতে হবে। 

  • এজেন্টের কাছে গিয়ে প্রথমে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র নিতে হবে। 

  • জাতীয় পরিচয়পত্রের সাথে  দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি নিতে হবে। 

  • সকল তথ্যাবলী এজেন্ট পূরণ করার পর আপনার মোবাইলে একটি নিশ্চিতকরণ  এসএমএস আসবে। 

  • আপনাকে বিকাশ কোডের মাধ্যমে একটি পিন নম্বর সেট করতে হবে।

উক্ত ধাপসমূহ অনুসরণ করে আপনি খুব সহজে ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন

বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

বিকাশের নিরবিচ্ছিন্ন সেবার কারণে বিকাশ আস্থা অর্জন করে নিয়েছে এদেশের শত শত মানুষের মনে। তাই আজকাল সকলের ঘরে ঘরে রয়েছে বিকাশ একাউন্ট। দিন দিন বিকাশের জনপ্রিয়তার ফলে আজকাল তাই বিকাশ এজেন্ট ব্যবসা  জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কিন্তু অনেকেই জানেন কিভাবে বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খুলতে হয়। আপনাদের সুবিধার কথা চিন্তা নিচে তুলে ধরলাম কিভাবে খুলতে হয়।

এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়মসমূহ –

  • জাতীয় পরিচয়পত্র/লাইসেন্স। 

  • ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি। 

  • সচল মোবাইল নাম্বার। 

  • ট্রেড লাইসেন্স। 

  • আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম। 

সকল তথ্যাদি পূরণ করে আপনাকে এজেন্ট বরাবর জমা দিতে হবে। এভাবেই নিশ্চিতকরণ এসএমএসের পর পিন নাম্বার দিয়ে আপনার একাউন্ট সেট করে নিতে হবে।

বিকাশ একাউন্ট দেখার নিয়ম:

এতোক্ষণে নিশ্চয়ই খুলে ফেলেছেন বিকাশ একাউন্ট। কিন্তু বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম জানা আছে কি? তাহলে চলুন জেনে আসি কিভাবে চেক করতে হয় বিকাশ একাউন্ট?

আপনি যদি এপ্লিকেশনের মাধ্যমে ব্যালেন্স চেক করতে চান তাহলে আপনার এন্ড্রয়েড ফোনে  বিকাশ এপ্লিকেশন খুলবেন। পিন নাম্বার প্রদানের পর চেক ব্যালেন্স অপশন থেকে চেক করতে পারবেন ব্যালেন্স।

আপনি যদি এপ্লিকেশন ছাড়া কোডের মাধ্যমে ব্যালেন্স চেক করতে চান তাহলে আপানার মোবাইল দিকে *247# ক্লিক করে 8 নম্বর অপশনে  বিকাশে গিয়ে চেক ব্যালান্সে আপনার একাউন্টে টাকা দেখতে পাবেন।

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম-

অনেক সময় মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে, সিম পরিবর্তন করলে, সিম হারিয়ে গেল, কোন কাজে বিকাশ একাউন্ট পরিবর্তন করার প্রয়োজন পরে। বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করা একটি দীর্ঘমেয়াদি প্রক্রিয়া। এটি আপনি কোনো ওয়েবসাইট কিংবা এপ্লিকেশন এর মাধ্যমে করতে পারবেন না। 

  • কাজটির জন্য আপনাকে বিকাশের অফিসে যেতে হবে। 

  • বিকাশের নির্দিষ্টি অফিসে গিয়ে আপনাকে যে এনআইডি কার্ড ব্যবহার করে একাউন্ট খুলেছেন সেই কার্ডটি সাথে করে নিয়ে যেতে হবে।

  • যদি আপনি অন্য কারো নাম একাউন্ট করা থাকে তাকে সাথে করে নিয়ে জিতে হবে। 

  • তারপর সমস্ত নিয়মাবলী পূরণ করে ডিলিটকৃত একাউন্টের ব্যালেন্স জিরো করে ডিলেট করতে হবে একাউন্ট।

একটি আইডিকার্ড দিয়ে কয়টি একাউন্ট খোলা যায়

ব্যক্তিগত প্রয়োজনে হউক কিংবা কোনো ধরণের ব্যবসায়িক কাজে আমাদের মাঝে মাঝে একাধিক বিকাশ একাউন্টের প্রয়োজন পরে। কিন্তু আপনি কি জানেন একটি আইডি কার্ড দিয়ে কয়টি  বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়?

 আপনাদের অবগতির জন্য, জানিয়ে রাখা ভালো যে একটি এনআইডি কার্ড দিয়ে শুধুমাত্র একটি বিকাশ একাউন্ট খোলা যাবে। আপনি যদি একটি  এনআইডি কার্ড দিয়ে একাধিক একাউন্ট খুলে থাকেন তাহলে সে একাউন্ট বন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই যদি বিকাশ একাউন্ট সুরক্ষিত রাখতে চান তাহলে যেন আইডি দিয়ে শুধুমাত্র একটি বিকাশ একাউন্ট খোলা শ্রেয়।

জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

আপনার বয়স যদি ১৮ বছরের কম হয়, সেই ক্ষেত্রে আপনি কোনো ধরণের ন্যাশনাল আইডি কার্ড পাবেন না। কিন্তু কেউ যদি বিকাশ একাউন্ট খুলতে চান, সেটা বিকাশ এপ্লিকেশনের মাধ্যমে কোনোভাবেই সম্ভব নয়। 

জন্ম নিবন্ধন দিয়ে একাউন্ট খুলতে আপনাকে যেতে হবে বিকাশ এজেন্টের কাছে। আপনাকে আপনার দুইকপি ছবি, জন্ম নিবন্ধন নিয়ে যেতে হবে বিকাশ এজেন্টের কাছে। তারাই আপনাকে একাউন্ট খুলতে সাহায্য করবে।

বিকাশ একাউন্টের মালিকানা পরিবর্তন  

অনেক সময় আইডি কার্ড না থাকাতে, অনেকে তার বয়সের বড় কোন ব্যক্তির আইডি কার্ড ব্যবহার করে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হয়। তেমনি বিকাশ একাউন্ট কৃত নানা ঝামেলায় সেই ব্যক্তিকে খুঁজে সাথে নিয়ে সমস্যা সমাধান করা বেশ কষ্টসাধ্য বটে। 

তাই অনেক সময় ব্যক্তিগত প্রয়োজনবোধ থেকে আমরা বিকাশের মালিকানা পরিবর্তন করতে চাই। কিন্তু আপনি যদি বিকাশ একাউন্ট মালিকানা পরিবর্তন করতে চান তা কিন্তু ঘরে বসে করতে পারবেন না।

 বিকাশ অফিসে গিয়ে আপনাকে বিকাশ একাউন্টের মালিকানা পরিবর্তন করে নিতে হবে। তার জন্য আপনাকে নিচের বিষয় মেনে চলতে হবে –

  • আপনি যে একাউন্টের মালিকানা পরিবর্তন করতে চান সেই একাউন্ট সচল হতে হবে। 

  • একাউন্টে আপনার কত টাকা  বিদ্যমান রয়েছে তা জানাতে হবে। 

  • যে নম্বরে একাউন্ট রয়েছে সেই নাম্বার সচল থাকতে হবে।

  • যার নাম একাউন্ট রয়েছে তার একটি ছবি লাগবে সাথে আইডি কার্ডের ফটোকপি লাগবে। 

  • যার নাম একাউন্ট পরিবর্তন করে নিতে চান তার এক কপি রঙিন ছবি। 

বিকাশ একাউন্ট নাম্বার পরিবর্তন  

অনেক ক্ষেত্রে আমাদের বিকাশ একাউন্ট নাম্বার পরিবর্তন করার প্রয়োজন পরে থাকে। একাউন্ট পরিবর্তন করার জন্য –

  • বিকাশের হেল্পলাইনে  কল দিতে হবে। 

  • বিকাশ হেল্পলাইনে নিয়োজিত ব্যক্তি আপনার একাউন্টের এর সত্যতা যাচাই করার জন্য আপনার একাউন্টের নাম ও একাউন্ট নাম্বার জিজ্ঞেস করবে।

  • তারা তথ্য যাচাই করার পর আপনার সমস্যার কথা জানতে চাইবে। 

  • পরবর্তীতে তাদের নিৰ্দেশনা অনুযায়ী একাউন্ট পরিবর্তন করে নিতে পারবেন।

উপসংহারঃ বিকাশ আমাদের পাশে বন্ধু রূপে আবির্ভাব হয়েছে। আমাদের জীবনে নানা সমস্যায় সব সময় পাশে আছে বিকাশ। তাই আমরা আপনাদেরকে আজ বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম দেখালাম।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

sex videos
pornvideos
xxx sex